সামগ্রিক বিক্রি দাঁড়াবে ২৫ থেকে ৩০ হাজারকোটি টাকা, দাবি দোকান মালিক সমিতির

আমাদের নতুন সময় : 01/06/2019

তাপসী রাবেয়া : মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতরের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। সেই উপলক্ষে অভিজাত বিপণি বিতান, মার্কেট থেকে ফুটপাত পর্যন্ত সর্বত্র ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন বিপণি-বিতান ও ফুটপাতে চলছে বিকিকিনি। রোজার শেষের দিকে এসে ঈদেও কেনাকাটা এখন সবচেয়ে জমজমাট। ঈদের কেনাকাটা নগরীর বসুন্ধরা সিটি শপিং মল, যমুনা ফিউচার পার্ক, রাপা, মেট্রো শপিং মল, কর্ণফুলী গার্ডেন সিটি, নিউমার্কেট, গাউছিয়া, চাঁদনীচক, মৌচাক মার্কেট, বেইলি রোড, মিরপুর বুটিক পাড়া ও এলিফ্যান্ট রোডের বিপণি-বিতানগুলোতে বেশ জমেছে।

এসবের পাশাপাশি স্থানীয় পাড়া-মহল্লার দোকান, শপিং মলও ব্যাপক জমজমাট। ভিড় যানজট আর রোজার ক্লান্তির কারণে নিজ নিজ এলাকার পাড়া মহল্লার দোকানকে বেছে নিয়েছেন স্থানীয় অনেকে। রাজধানীর বাড্ডা এলাকার হল্যান্ড সেন্টার, সুবাস্তু, মধ্য বাড্ডার দোকান ঘুরে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। হল্যান্ড সেন্টারে মুক্তি শাড়ি, নিউ জেন্টস কালেকশন, সঞ্জু ফ্যাশন, সায়মন ফ্যাশন, ইসলাম শাড়ি বিতান, সামির টেক্স (বাচ্চাদের), প্রিয়া ওড়না হাউস ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতা সমাগমে বিক্রেতারা ব্যস্ত সময় পার করছেন। এখানে শাড়ি, বিভিন্ন ধরনের ড্রেস, প্রসাধনী, অলঙ্কার, কসমেটিকস বেশি বিক্রি হচ্ছে। নারী ক্রেতাদের ভিড় বেশি লক্ষণীয়। হল্যান্ড সেন্টারে শাড়ির দোকানে শাড়ি কিনতে এসেছেন উত্তর বাড্ডা এলাকার বাসিন্দা শাহিনা খাতুন।

তিনি বলেন, ‘ঈদের কেনাকাটায় যানজট ভোগান্তি বিবেচনা করে নিউ মার্কেট, চাঁদনী চক, গাউছিয়ায় যাওয়া হয়নি কিন্তু নতুন পোশাক তো কিনতে হবে। আরেক ক্রেতা সুমি কানন বলেন, ছোট ছোট দুইটা বাচ্চা নিয়ে এতো যানজট পেরিয়ে আর অন্যদিকে যাওযার সুযোগ নেই। তিনি বললেন, ‘এখানে মানভেদে শাড়ির দাম ৬০০ থেকে ৩ হাজার টাকা। ছেলেদের পাঞ্জাবি, প্যান্ট, শার্ট, গেঞ্জির দোকানেও ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। মধ্য বাড্ডার একটি দোকানে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করেন সোহান আহমেদ। তিনি ঈদের কেনাকাটা করতে সুবাস্তু শপিং সেন্টারে এসেছেন। সঙ্গে তার দুই বন্ধু আবির আর মাসুমও ছিল। কেনাকাটা বিষয়ে সোহান আহমেদ বলেন, ‘গত শুক্রবার একবার এসেছিলাম ঈদের কেনাকাটা করতে, আবার এসেছি মায়ের জন্য শাড়ি, বাবার জন্য পাঞ্জাবি আর ছোট ভাতিজার জন্য শার্ট প্যান্ট কিনতে।

ঈদকেন্দ্রিক বিক্রি পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন এ প্রতিবেদককে জানান, আমরা আশা করছি এবার ঈদ কেন্দ্রিক পোশাক বিক্রি হবে ২৫ থেকে ৩০ হাজার কোটি টাকা। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]