ওয়ালিউর রহমান বললেন, ভূ-রাজনৈতিক স্বার্থের জন্য রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এগোচ্ছে না

আমাদের নতুন সময় : 03/06/2019

আমিরুল ইসলাম : রোহিঙ্গাদের আইনগত অধিকার নিশ্চিতে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলার বিষয়ে ওআইসির সমর্থন কামনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওআইসি সম্মেলনের মাধ্যমে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের পথ কতোটা সুগম হবেÑ জানতে চাইলে সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান বলেছেন, জিওপলিটিক্যাল ইন্টারেস্টগুলোর জন্য আমাদের রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এগোচ্ছে না।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওআইসি সম্মেলনে বলেছেন, বাংলাদেশের পক্ষে বারো লাখ রোহিঙ্গা রাখা সম্ভব নয়। এখানে খাবারের ও থাকার জায়গার অভাবের প্রশ্ন নয়, কিন্তু আমাদের দেশের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। মিয়ানমার আন্তর্জাতিক আদালতের সদস্য নয়। মিয়ানমার আইসিসির সদস্যপদ গ্রহণ করেননি। সেখানে একটা প্রশ্ন রয়েছে। তবু যদি আইসিসি চায় তারা মামলা গ্রহণ করবে এবং তারা গ্রহণ করার কথা বলেছেও। শুধু মিয়ানমারই নয় পৃথিবীর বহু দেশ আইসিসির সদস্যপদ গ্রহণ করেনি। আইসিসিতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যদের কাছ থেকে একটা রেগুলেশন যায়। এখানে রেগুলেশন যাবে না, কারণ চীন এখানে ভেটো দেবে। নিরাপত্তা পরিষদের রেগুলেশন ছাড়া আইসিসি একটা বিচারিক প্রক্রিয়া শুরু করতে পারে। তবে বিচার করার পরে যারা দোষী সাব্যস্ত হয় তাদের নৈতিকভাবে একটা কষাঘাত করা যাবে। বিআরআই (বেল্ট এন্ড রোড ইনিশিয়েটিভ) কারণে চীনের ভূরাজনৈতিক আগ্রহ বেড়ে গেছে মিয়ানমারের ব্যাপারে। বৈশি^ক ভূরাজনীতিতে মিয়ানমার এখন চীনের সবচেয়ে বড় ঘুটি। শি জিনপিং এর ইন্ধন ছাড়া মিয়ানমার কখনো রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে না।
তিনি আরো বলেন, ১৯৭৭-৭৮ সালে ওআইসি খুব শক্তিশালী ছিলো। তখন তাদের কথা সবাই শুনতো। এখন ওআইসি তেমন শক্তিশালী নয়। ওআইসির সবচেয়ে শক্তিশালী সদস্য রাষ্ট্র হচ্ছে সৌদি আরব। তারা ফিলিস্তিনের ব্যাপারে নি¤œস্বরে কথা বলছে। সৌদি আরব, ইরাক, কুয়েত, বাহরাইন ফিলিস্তিনের ব্যাপারে নি¤œস্বরে কথা বলছে। সৌদি আরব তার পূর্বের অবস্থান থেকে সরে এসেছে বিএনপির ব্যাপারে। সৌদির রয়েল প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান, যিনি এখন দেশ চালাচ্ছেন, তার সঙ্গে আমাদের ভালো সম্পর্ক রয়েছে। সৌদির সঙ্গে অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে আমাদের সম্পর্ক এখন ভালো। ভূরাজনৈতিক ব্যাপারে সৌদি আরব তাদের শক্তি ব্যবহার করার ব্যাপারে সন্দেহ আছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]