• প্রচ্ছদ » » জ্যোতিষবিদ্যা বিজ্ঞানের উপরে!


জ্যোতিষবিদ্যা বিজ্ঞানের উপরে!

আমাদের নতুন সময় : 03/06/2019

কামরুল হাসান মামুন

একটি রাষ্ট্রকে ধ্বংস করার জন্য আণবিক বোমা কিংবা দূরপাল্লার মিসাইল লাগে না। শিক্ষার মান নামিয়ে দাও ওটা তখন আপনাআপনিই হয়ে যাবে। শিক্ষার মান যে কমছে তার প্রমাণ সর্বত্র বিদ্যমান, কিন্তু দেখার মতো চোখ থাকতে হবে তা। দল করা মানে যদি পীরের মুরিদ বনে যাওয়া বোঝায় তাহলে পীর যা বলবে মুরিদ শুধু তাই দেখবে। ইদানীং আমি চোখ মেললে কেবল মুরিদ মুরিদ দেখি। একবার ওহফরধহ ঝপরবহপব ঈড়হমৎবংং-এ এক তোষামোদকারী তথাকথিত বিজ্ঞানী দাবি করে বসেন যে, মোদীর নামে একটি সায়েন্টিফিক সেশন হওয়া উচিত। বোঝাই যাচ্ছে সে মোদী ঝড়ে বিজ্ঞানের আঙ্গিনা থেকে উড়ে গিয়েছিলো। অথচ এটা আশা করা হয় বিজ্ঞানীরা (পড়ুন শিক্ষকরা) ডিউটি বাউন্ড থাকবে এবং সদা মাথা উঁচুতে রাখবে ঠিক যেমন রবীন্দ্রনাথ বলেছিলেন ‘চিত্ত যেথা ভয়শূন্য’!
উত্তরখানদের মুখ্যমন্ত্রী ও এমপি রমেশ পোখরিয়াল নিশংক বলেছেন ‘অংঃৎড়ষড়মু রং ঃযব নরমমবংঃ ংপরবহপব. ওঃ রং রহ ভধপঃ ধনড়াব ংপরবহপব. ডব ংযড়ঁষফ ঢ়ৎড়সড়ঃব রঃ’ মানে জ্যোতিষবিদ্যা বিজ্ঞানের উপরে! এর আগে নাকি উনি বলেছিলেন ‘আমরা নিউক্লিয়ার টেস্টের কথা বলি, কিন্তু ওটা ঝধমব কধহধফ লাখো বছরে টেস্ট করেছে’!
ধর্মের সঙ্গে রাজনীতি মেশালে এ রকম কথা আসবেই। এ ধরনের কথা আমাদের এখানেও নানা সময় বলা হয়েছে এবং হবে। আমার স্ত্রী বলে বর্তমানের ইতালিয়ান প্রাইম মিনিস্টারও এ রকম কথা অহরহ বলে যাচ্ছেন। বলে রাখি ওই প্রাইম মিনিস্টারও ক্ষমতায় এসেছে ধর্মের সঙ্গে এক চিমটি রাজনীতি আর এক চিমটি ইমিগ্র্যান্ট ইস্যুকে পুঁজি করে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]