শেষ সময়ে জমে উঠেছে জুতার বাজার, আছে কিস্তি সুবিধাও

আমাদের নতুন সময় : 03/06/2019

তাপসী রাবেয়া : পছন্দের পোশাকের সঙ্গে চাই মানানসই জুতা। সেটা না মিললে ঈদ উৎসবই যেন অপূর্ণ থেকে যায়। তাই মানানসই জুতা বাছাই করতে ক্রেতাদের ছুটতে হচ্ছে এই দোকান থেকে সেই দোকানে, এই মার্কেট থেকে ওই মার্কেটে। সবার চেয়ে আলাদা ও খানিকটা বৈচিত্র খুঁজতেই ব্যস্ত সবাই। কারণ শেষ মুহূর্তে পছন্দের পণ্যটি পাওয়া যায় না। ব্যবসায়ীদের দাবি এবার ঈদে বসেছে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকার জুতার বাজার। রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোড, পলওয়েল মার্কেট, নিউমার্কেট, বসুন্ধরা সিটি ও যমুনা ফিউচার পার্কসহ সব মার্কেটেই জুতার বিক্রি বেশ ভালো বলে জানান ব্যবসায়ীরা। ঈদ বাজারে মেয়েদের পছন্দ ছিমছাম অল্প হিল ও স্লিপার ধরনের স্যান্ডেল। এলিফ্যান্ট রোডে বাটার বিপণন কর্মকর্তা জুবায়ের ইসলাম বলেন, এবার ঈদের জুতায় ব্যবহার করা হয়েছে বর্ষা উপযোগী উপকরণ। তবে ডিজাইনে থাকছে আধুনিকতার ছাপ। সঙ্গে রেগুলার ও এক্সক্লুসিভ দুই ধরনের। এখানকার অন্যান্য জুতার দোকানগুলোতে স্ট্রাপ বা স্লিপারের দাম নকশার ওপর নির্ভর করে ৩৫০ থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে। এ ছাড়া বিভিন্ন ধরনের হিল পাবেন ৯০০ থেকে তিন হাজার টাকার মধ্যে। রাবার বা স্পঞ্জের স্যান্ডেল পাওয়া যাবে ১৫০ থেকে ৬০০ টাকায়। ছেলেদের জুতার মধ্যে এবার ঈদে সিøপার, কনভার্স ও সু-এর চাহিদাই বেশি। এ ছাড়া কিছু স্পোর্টস সুও বিক্রি হচ্ছে। চামড়া, রেক্সিন ও কাপড়ের জুতার মধ্যে ডিজাইন ও স্থায়িত্বের ভিত্তিতে দামের হেরফের হয়। চামড়ার স্যান্ডেলের দাম ৬৯০ থেকে ২ হাজার ৪৫০ টাকা, বুট শু এক হাজার ৩৫০ থেকে ৩ হাজার ৬৫০ টাকা, স্নিকার্স ৮৫০ থেকে দুই হাজার ৪৫০ টাকা এবং বিভিন্ন ডিজাইনের মোকাসিন পাওয়া যাচ্ছে এক হাজার ৫৫০ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে। আর রাবার বা স্পঞ্জের স্যান্ডেল পাওয়া যাচ্ছে ১৫০ থেকে ৪০০ টাকায়। এবারও বাচ্চাদের জুতায় রয়েছে বাহারি ডিজাইন ও নতুনত্বেও ছোঁয়া। ডোরেমন, মটু-পাতলু কার্টুন সংবলিত জুতাই বিক্রি হচ্ছে বেশি। ২৫০ থেকে শুরু করে ৩ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে এগুলো।
এদিকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ঈদে নগদ ছাড়সহ কিস্তিতে জুতা কেনার সুযোগ দিচ্ছে। সঙ্গে ক্যাশব্যাকের অফার তো আছেই। বাটার শোরুম থেকে বাংলা লিংক গ্রাহকরা সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ ছাড়ে জুতা কিনতে পারবেন। এ ছাড়া বিকাশে ১০ ও রকেটে ২০ শতাংশ ক্যাশ ব্যাক তো আছেই। তবে আড়ং এর শো রুমগুলোতে বিকাশে পেমেন্ট করলে মিলছে ২০ শতাংশ ক্যাশব্যাক সুবিধা। আর ক্রিসেন্ট দিচ্ছে কিস্তিতে জুতা কিনার সুযোগ। এবারকার ঈদ মৌসুমে ফুলবাড়িয়াসহ পাইকারি বাজারে ১২শ’ কোটি টাকার জুতা বিক্রির আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা গুলিস্তানসংলগ্ন ফুলবাড়িয়ায় রয়েছে বেশ কয়েকটি জুতার পাইকারি মার্কেট।
বনানীর লেদারেক্স শোরুমে এসেছেন নাজিয়া মুনমুন। তিনি বলেন, জামাকাপড় কেনাকাটা করে এখন চলছে জুতা আর ব্যাগ কেনা। সুন্দর একটা জামার সঙ্গে জুতাটা মানানসই না হলে সবটাই পন্ড।
গুলশানের সু ওয়ার্ল্ড শোরুমে কেনাকাটা করছেন মারিয়া ফারহাত। এই ক্রেতা বলেন, সারাবছর নরমাল জুতাই কেনা হয়। তবে ঈদে একটু এক্সক্লুসিভ জুতা কেনন তিনি।
মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে এখন বেশি বিক্রি হচ্ছে জুতা, কসমেটিকস আর ব্যাগ। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]