সব মেয়ের পড়া উচিত

আমাদের নতুন সময় : 03/06/2019

১. সবার আগে নিজের ক্যারিয়ার গড়বেন। এই ব্যাপারে কোনো কম্প্রোমাইজ করবেন না। মইরা গেলেও না। ২. আত্মসম্মান : আত্মমর্যাদা কখনো বিসর্জন দেবেন না। তাতে মরে যেতে হলে, যাবেন। ৩. চোখ বন্ধ করে পুরুষকে বিশ্বাস করবেন না। (গণহারে ট্রাস্টের কথা বলছি, ঃৎঁংঃড়িৎঃযু সধহ অবশ্যই আছে) পুরা ফেরেশতা মার্কা স্যার, আব্বুর বন্ধু, মামার ফ্রেন্ড, বড় ভাইয়ের বন্ধু, একদম ফ্যামিলি পারসন, এ রকম… এমন কারো সঙ্গে একা কোথাও থাকবেন না। ইব পধৎবভঁষ যিড় ুড়ঁ ঃৎঁংঃ, ঃযব ফবারষ ধিং ড়হপব ধহ ধহমবষ. ৪. বান্ধবীর বাসায় যেতে হলে পরিবারকে জানান। ফোন নম্বর আম্মু, আব্বু, বড় ভাই, আপুকে দিয়ে যান। সবসময় নিরাপদে যতো দ্রæত সম্ভব বাসায় ফিরবেন। রাতে চেষ্টা করবেন না থাকার। থাকলেও বাসার পরিবেশ দেখে নিয়েন। ৫. নিজের মঁঃ ভববষরহমংকে সবসময় প্রাধান্য দেবেন। দেখে কিছুই মনে হয় না, খুব ভালো মানুষ, কিন্তু মন কেন যেন ব্যক্তিটাকে পছন্দ করে না। এমন হলে সেই ব্যক্তি থেকে একশো হাত দূরে থাকেন। ঃৎঁংঃরহম ুড়ঁৎ ‘এঁঃ ঋববষরহম’ রং ড়ভঃবহ ঃযব নবংঃ ংঃৎধঃবমু ঃড় ংধাব ুড়ঁৎংবষভ.
৬. নিজের আবেগ সব সময় নিয়ন্ত্রণে রাখবেন। মেয়েরা আবেগের কারলে ভিক্টিম হয়। ৭. ফ্যামিলিকে সব সময় পাশে রাখবেন। ফ্যামিলিকে বিশেষ করে আম্মুকে বন্ধু বানান। তার সঙ্গে সব যেন শেয়ার করা যায় এমনভাবে সম্পর্ক করবেন আব্বু-আম্মুর গোপনে কিছু করবেন না। ভিকটিম হলে আপনি হবেন। তখন আব্বু-আম্মু ¯্রফে এই ভাববে ‘মেয়েটা আমাদের বললো না কেন!’ ৮. কাউকে বিশ্বাস করার আগে একশোবার ভাববেন। ইউ রিড ইট রাইট। একশোবার। ৯. নিজেকে ভালোবাসেন। এটা খুব দরকার। আপনি কালো, শর্ট, মুখে ব্রন… বিলিভ মি এগুলো কিচ্ছু নয়। আল্লাহ আপনাকে যেভাবে বানিয়েছেন আপনি সেভাবেই সুন্দর। আপনার মেধা, ব্যক্তিত্ব দেখে যেন একটা ছেলে দীর্ঘশ্বাস ফেলে নিজেকে ওইভাবে তৈরি করেন।
১০. সব সময় সত্যকে পাশে রাখবেন। মিথ্যা অনেক সহজ। অন্যায় অনেক আনন্দ দেয়। কিন্তু তা সবসময় ক্ষণিকের জন্য। সত্য সবসময়ের জন্য। তা যতো কষ্টের হোক। ১১. জীবন অস্বাভাবিক সুন্দর। হতাশা, ঁহবীঢ়বপঃবফ পৎরংরং, ঁহবীঢ়বপঃবফ রহপরফবহঃ এগুলো লাইফের পার্ট। ও আচ্ছা, এমন হলো। ঠিক আছে। এরপর কি?… লাইফের প্রতি এমন ধঃঃরঃঁফব রাখলে লাইফ আর সুবিধা করতে পারে না। পেইন দেবার আগে ভাবে এরে পেইন দিয়ে লাভ নেই। ১২. মাটি এখন পায়ের নিচে। একদিন এটা আমার, আপনার সাড়ে তিন হাত পরিমাণ উপরে থাকবে। আমাদের জন্য একসময় অন্যরা প্রার্থনা করবে, তার আগেই নিজের প্রার্থনা নিজেই অন্তত যেন করি। ১৩. গাড়ির ড্রাইভার, এ্যাপার্টমেন্টের দারোয়ান এই দু’দলের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করবেন না। এই দু’দলের মানুষ বিপদে চরম সাহায্য করে। (বুদ্ধিমানরা এখানে কি বলিনি তাও বুঝবে।) ১৪. অতীত নিয়ে একদম ভাববেন না। তবে অতীত থেকে শিক্ষা নেবেন। সুন্দর একটা স্মৃতি কি দ্বিতীয়বার একইভাবে আনন্দিত করবে আপনাকে? হড়ঢ়ব, হবাবৎ. প্রথমবারের থেকে কম আনন্দের অনুভ‚তি দেবে। তাহলে অতীতের দুঃখ কেন বারবার কাঁদাবে? সময় নেই, অতীত নিয়ে ভাবার… এভাবে ভাবেন। ইউ উইল বি হ্যাপিয়ার। পৃথিবীর সব নারী সুরক্ষিত থাকুক। সংগৃহীত




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]