• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » তীব্র সমালোচনার মুখে শিক্ষানীতি থেকে ‘বাধ্যতামূলক হিন্দি শিক্ষা’ সরালো মোদী সরকার


তীব্র সমালোচনার মুখে শিক্ষানীতি থেকে ‘বাধ্যতামূলক হিন্দি শিক্ষা’ সরালো মোদী সরকার

আমাদের নতুন সময় : 04/06/2019

সুস্মিতা সিকদার : ভারতের নতুন শিক্ষানীতির খসড়া প্রস্তাবে হিন্দি ভাষাকে বাধ্যতামূলক করার কথা বলায় অ-হিন্দি ভাষাভাষী দক্ষিণের রাজ্যগুলোতে ব্যাপক ক্ষোভ ও সামলোচনার ঝড় ওঠে। এই প্রেক্ষিতে সোমবার সকালে শিক্ষানীতির খসড়া সংশোধন করে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্র আস্বস্ত করে, শিক্ষার্থীরা স্বাধীনভাবে যে কোন ভাষায় শিক্ষালাভ করতে পারবে। ইন্ডিয়া টুডে, আনন্দবাজার

খসড়া সংশোধনীতে হিন্দি বাধ্যতামূলক করার পরিবতর্তে ‘নমনীয়’ শব্দটি যোগ করা হয়। সংশোধিত খসড়ায় বলা হয়, ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেনীর শিক্ষার্থীরা তিনটি ভাষার মধ্যে একটি বা তার বেশি ভাষা পরিবর্তন করতে পারবে। এ ব্যাপারে শিক্ষার্থীরা স্কুলের শিক্ষকদের সাহায্য নিতে পারবে।

এর আগে শনিবার মানব সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ককে কে কস্তুরীরঙ্গনের নেতৃত্বাধীন কমিটি জাতীয় শিক্ষানীতির খসড়া পেশ করেন। সেখানে শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষা এবং ইংরেজীর পাশাপাশি হিন্দিকে বাধ্যতামূলক করা হয়।  এই জাতীয় খসড়া নীতি নিয়ে দেশের সর্বত্র বিশেষ করে দক্ষিণের রাজ্যগুলোতে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। তামিল নাড়– রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী জানান, তামিলনাড়–তে তামিল ও ইংরেজী ভাষাই শেখানো হবে। এই বিষয় নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ই পালানীস্বামী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দেন। এই পরিস্থিতিতে  কেন্দ্রের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর সকলকে আশ্বস্ত করেন, শিক্ষার্থীদের হিন্দি জোর করে চাপিয়ে দেয়া হবে না। এর পরই শিক্ষানীতির খসড়া সংশোধন করা হয়। সম্পাদনা: লিহান লিমা




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]