• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » আঁকাবাঁকা দৃষ্টিনন্দন শেখ ফজিলাতুন্নেসা কাঠের সেতু দেখতে উপচেপড়া ভিড়


আঁকাবাঁকা দৃষ্টিনন্দন শেখ ফজিলাতুন্নেসা কাঠের সেতু দেখতে উপচেপড়া ভিড়

আমাদের নতুন সময় : 08/06/2019

তাপসী রাবেয়া : নবাবগঞ্জের শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান এবং আশুড়ার বিলকে পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণ বাড়াতে আশুড়ার বিলের উপর আঁকাবাঁকা দৃষ্টি নন্দন কাঠের সেতু বানানো হয়েছে। এই সেতুর নাম রাখা হয় শেখ ফজিলাতুন্নেছা কাঠের সেতু। গত কয়েকদিন আগে উদ্বোধন করা হয় এটি। কাঠের সেতুটিকে আরও আকর্ষণ বাড়াতে তিন দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করেন দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। আর ঈদের দিন থেকেই ৯০০ ফুট দীর্ঘ সেতুটি এখন হাজারো পর্যটকদের পদচারণায় মুখর। পর্যটকদের আকর্ষণে কাঠের আঁকাবাঁকা সেতুটি নির্মাণ থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারে মুগ্ধ হয়ে ছুটে আসছেন স্থানীয় ও দেশের বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার পর্যটক। এতে উদ্যানটি হয়ে উঠেছে সব বয়স, সব শ্রেণির মানুষের মিলন মেলায়।সরেজমিনে দেখা যায়, পর্যটকদের আর্কষণ বাড়াতে আশুড়ার বিলে নামমাত্র টাকা নিয়ে চালানো হচ্ছে নৌকা। বসেছে প্রায় শ খানেক বিভিন্ন প্রকার দোকান। বিভিন্ন এলাকার মানুষ ব্যাটারিচালিত অটো নিয়ে কেউবা মোটরসাইকেল আবারো কেউ

মাইক্রোবাসে করে এসে পিকনিক করছে। জাতীয় উদ্যানের ভেতরে বিশাল শাল বন ছাড়াও আশুড়ার বিল, সীতার কোট বিহার ও বাল্মিকী মনির থান অবস্থিত। জাতীয় উদ্যানকে সুন্দর করে তুলতে আশুড়ার বিল পরিষ্কার করা হয়েছে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর মনমাতানো নান্দনিক এই বিলটিতে বর্ষা মৌসুমে দেশি প্রজাতির মাছ, হারিয়ে যাওয়া জাতীয় শাপলা ফুলের চাষ করা হচ্ছে। বিলটিতে শাপলা ফুলের বংশবিস্তারে ফুলের চারা রোপন, বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের চারা লাগানো, জাতীয় উদ্যানের শাল গাছে পাখির অভয়াশ্রমের জন্য মাটির হাঁড়ি ঝুলিয়ে পাখির আবাসস্থানের ব্যবস্থাকরণসহ আধুনিকায়নে নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন উদ্যোগ।এদিকে, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর দিনাজপুরের পক্ষ থেকে উন্নতমানের ল্যাট্রিন, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাসহ বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে প্রশাসন।উপজেলা নির্বাহী অফিসার মশিউর রহমান জানান, পর্যটকদের আনাগোনা বাড়াতে আরো নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। আগতদের নিরাপত্তার সার্বিক ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হবে। শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার আশুড়ার বিলকে শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান হিসেবে ২৪ অক্টোবর ২০১০ সালে গেজেট প্রকাশিত হয়। এই জাতীয় উদ্যানের আয়তন ৫১৭.৬১ হেক্টর বা ১২৭৮.৪৯ একর। গত ১জুন নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় উদ্যান ঘেষা আশুড়ার বিলে শেখ ফজিলাতুন্নেছা কাঠের সেতুর উদ্বোধন করেন দিনাজপুর ৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. শিবলী সাদিক  ও বিশেষ অতিথি দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহামুদুল আলম।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]