• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » ভারতের পদ্মশ্রী-পদ্মভূষণ পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতাও পরিচালক গিরিশ কারনাড মারা গেছেন


ভারতের পদ্মশ্রী-পদ্মভূষণ পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতাও পরিচালক গিরিশ কারনাড মারা গেছেন

আমাদের নতুন সময় : 11/06/2019

দেবদুলাল মুন্না : ভারতের বিখ্যাত অভিনেতা ও পরিচালক  গিরিশ কারনাড গতকাল সোমবার সকালে বেঙ্গালুরে লাভেলি রোডের নিজ বাসভবনে মারা গেছেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১। গতকাল টাইমস অব ইন্ডিয়া এই খবর জানায়। বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালক হিসেবে সুনাম অর্জন করেন তিনি। পেয়েছেন পদ্মশ্রী (১৯৭৪), পদ্মভূষণ (১৯৯২) ও জ্ঞানপীঠ (১৯৯৮) সম্মান। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ চারটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পেয়েছেন। ১৯৬০ সাল থেকে কন্নড় ভাষায় লেখক হিসেবেও জনপ্রিয়তা পান।

১৯৩৮ সালের ১৯ মে বর্তমান মহারাষ্ট্রের মাথেরানে গিরিশ কারনাডের জন্ম। পড়াশোনার শুরু কর্ণাটকে। উচ্চ শিক্ষা নিয়েছেন অক্সফোর্ডে রাজনীতি ও অর্থনীতি বিষয়ে।একাডেমিক ব্যাকগ্রাউ-ে অনেকেই ভেবেছিলেন, তিনি অভিনয় জগতে আসবেন না। গতকাল অমিতাভ বচ্চন টুইটারে লেখেছেন, ‘গিরিশ কারনাডের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পর বুঝেছিলাম তিনি একটা জীবন্ত এনসাইকোপ্লিডিয়া।’ ১৯৭০ সালে ‘সংস্কার’ ছবি দিয়ে বড় পর্দায় গিরিশ কারনাডের যাত্রা শুরু। অভিনয় করেছেন  ‘মন্থন’, ‘স্বামী’, ‘পুকার’-এর মতো হিট ছবিতে। ২০০৫ সালে মুক্তি পায় ‘ইকবাল’। এই ছবিতে তাঁর অভিনয় পছন্দ করেন দর্শক। সালমান খানও তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে টুইটারে লেখেছেন, ‘আমার সাথে গিরিশ কারনাড দুটি মুভিতে অভিনয় করেছিলেন। ২০১২ সালে ‘এক থা টাইগার’ এবং ২০১৭ সালে ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’। সেসময়ও তাকে এতো অসুস্থ মনে হয়নি। কিন্তু গত একবছরে তিনি বেশ কয়েকবার অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। দু:খ তাকে তখন দেখতে যেতে পারিনি।’ছোট পর্দায়েও গিরিশ কারনাড ছিলেন জনপ্রিয়। ১৯৮৬-৮৭ সালে জনপ্রিয় টিভি ধারাবাহিক ‘মালগুড়ি ডেজ’-এ তিনি অভিনয় করেন।

পরিচালক হিসেবে ১৯৭১ সালে কন্নড় ছবি ‘বংশবৃক্ষ’দিয়ে তার কাজ শুরু। এ প্রথম মুভি করেই  তিনি শক্তিমত্ত্বার পরিচয় দেন। তিনি সেরা পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।

তাঁর নাটকে বারবার বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছে। মৃত্যুর হুমকি দেওয়া হয়েছে তাকে তিনবার। সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকা-ের প্রতিবাদ করেন। ওই সময় নিজেকে ‘আরবান নকশাল’ বলে ঘোষণা দেন। নকশালদের উৎসাহ দিচ্ছেন, এই অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছিল। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]