• প্রচ্ছদ » আমাদের খেলা » আইন অনুযায়ী ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে  সোহেল তাজের ভাগ্নের খোঁজ পাওয়া যাবে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


আইন অনুযায়ী ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে  সোহেল তাজের ভাগ্নের খোঁজ পাওয়া যাবে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 19/06/2019

আনিস তপন : ডিআইজি মিজানকে বরখাস্ত করা হয়েছে, তাকে ওএসডি করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনী প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নন, আইন অনুযায়ী তাকে শাস্তি দেয়া হবে। মঙ্গলবার সচিবালয়ের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সুরক্ষা সেবা বিভাগ ও এর অধীনস্ত বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এ সময় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজের মামাতো বোনের ছেলেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নামে অপহরণ ও উদ্ধার তৎপরতা বিষয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ এ বিষয়ে আমার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। তাৎক্ষণিক আমি সংশ্লিষ্ট পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে অপহরণের বিষয়ে কথা বলেছি। তিনি কাজ করছেন। হয়তো তার খোঁজ পাওয়া যাবে এবং তিনি বেরিয়ে আসবেন।

সোমবার অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে সোহেল তাজ দাবি করেন, তার ভাগ্নে কয়েক দিন যাবৎ নিখোঁজ রয়েছেন। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, সোহেল তাজের ভাগ্নে সৈয়দ ইফতেখার আলম সৌরভকে উদ্ধারে পুলিশ কাজ করছে। সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আমাকে জানিয়েছেন, তার ভাগ্নেকে নাকি পাওয়া যাচ্ছে না। সেজন্য থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, আমি মনে করি তিনি যদি কোনোখানে গিয়ে থাকেন তাহলে ফিরে আসবেন। না হলে জিডি অনুযায়ী পুলিশ কর্মকর্তারা আইনি ব্যবস্থা নেবে।

প্রতি থানাতে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পদে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারদের পদায়ন করার চিন্তাভাবনা করছে সরকার, এমন শোনা যাচ্ছে, এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগে ওসি হতেন একজন এসআই। এখন ওসি হন একজন প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা। উন্নয়ন ও এগিয়ে যাওয়া এটা তো একটা রুটিন ওয়ার্ক, এটা তো হবেই। আমরা সব সময়ই সবকিছুকে অ্যাডপ্ট করছি আরও এগিয়ে যাওয়ার জন্য।

এদিন সুরক্ষা সেবা বিভাগের সঙ্গে তার অধীনস্ত চার সংস্থা বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি করে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, কারা অধিদপ্তর এবং ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর প্রধানরা এই চুক্তি করেন। আর সুরক্ষা সেবা বিভাগের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন সচিব মো. শহিদুজ্জামান।

এই চুক্তিতে সরকারের রূপকল্প ২০২১, এসডিজি ও নির্বাচনী ইশতেহারের বিখিন্ন প্রতিশ্রুতি যুক্ত হয়েছে। তাই এটা আগের চুক্তিগুলো থেকে কিছুটা ভিন্ন উল্লেখ করে কামাল বলেন, আগামী বছর সংস্থাগুলো কী কাজ করবেন চার সংস্থা প্রধান সেই বিষয়ে সুরক্ষা সেবা বিভাগের সঙ্গে চুক্তি করলেন। লক্ষ্য অর্জনে সংস্থাগুলোকে বছরের প্রথম থেকেই কাজ করতে হবে। আশা করি সফলতা দেখিয়ে তারা গত বছর থেকেও এবার এগিয়ে যাবেন। গত অর্থবছর সুরক্ষা সেবা বিভাগ চুক্তি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে ৯২ দশমিক ৭৬ নম্বর পেয়েছে সব মন্ত্রণালয়/বিভাগের মধ্যে সপ্তম স্থান অর্জন করেছে বলেও এসময় উল্লেখ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]