• প্রচ্ছদ » টুকরো খবর » বাংলাদেশের জয়ে লজ্জা পান এই ভেবে যে, দুই ম্যাচ আগেই কী গালাগাল দিয়েছেন খেলোয়াড়দেরকে!


বাংলাদেশের জয়ে লজ্জা পান এই ভেবে যে, দুই ম্যাচ আগেই কী গালাগাল দিয়েছেন খেলোয়াড়দেরকে!

আমাদের নতুন সময় : 19/06/2019

জান্নাতুন নাঈম প্রীতি

হুমায়ূন আহমেদ সাকিব আল হাসানকে বই উৎসর্গ করার পর সাকিব আল হাসান হুমায়ূন আহমেদের উদ্দেশ্যে লিখেছিলেন- বই পড়ার অভ্যাস আমার নেই, তবে যে দুই একটা বই পড়েছি সেগুলোর লেখক হুমায়ূন আহমেদ। তার বইয়ে নিজের নাম দেখতে পাওয়াটা অনেক বড় সৌভাগ্য। তিনি আমার খেলা মুগ্ধ হয়ে দেখেন জেনে আমিও মুগ্ধ হয়ে গেলাম। আমি যার লেখা ভালোবাসি, তিনি ভালোবাসেন আমার খেলা!
সাকিব আল হাসান আরও লিখেছিলেন-এক লেখায় হুমায়ূন আহমেদ জানতে চেয়েছিলেন- ক্রিকেট ১১জন খেলে কেন? এর কম বা বেশি না কেন? স্যারকে জানানো হলোনা ক্রিকেটার হয়েও আমি আজ পর্যন্ত এই প্রশ্নের উত্তর জানিনা! আরেকবার শাহরুখ খানের বাড়ির পার্টিতে যাওয়ার পর সাকিবের দেয়া একটা সাক্ষাৎকারে পড়েছিলাম- ওই পার্টিতে বলিউড সুপারস্টার হৃতিক রশান ছিলেন। হৃতিক হাত বাড়িয়ে দিয়ে বলেছিলেন- হাই, আমার নাম হৃতিক। আমি তোমার খেলা দেখেছি! সাকিব বলেছিলেন- হৃতিককে কে না চেনে, অথচ তিনি দিচ্ছেন নিজের পরিচয়। তার বিনয় দেখে লজ্জা পেয়েছিলাম!
আমি এই দুটো ঘটনার কথা কেন বলছি জানেন? কারণ ভালো খেলা কেবল মানুষকে অনন্য খেলোয়াড় বানায়, কিন্তু মানুষের লজ্জা প্রকাশ, মানুষের বিনয় আর মেধা যোগ হলে মানুষকে বানায় অধিকতর মানুষ! সাকিব আল হাসান যার কিছুটা হয়েছেন! সাকিব আল হাসান কেবল না, পুরো বাংলাদেশ দলই যখন খেলে তখন সর্বস্ব ও সর্বোচ্চ ডেডিকেশান দিয়ে খেলে। কাজেই সাকিবের জয়ে, বাংলাদেশের জয়ে নেচে উঠুন, তারপর লজ্জা পান এই ভেবে যে দুই ম্যাচ আগেই কি গালাগাল দিয়েছেন এদেরকে! এই লজ্জাটুকু আপনার এবং আমার দরকার। কারণ আমরা ছোট হই মানুষকে অসম্মান করে সম্মান আদায়ের অহেতুক অপচেষ্টায়, আর আমরা বড় হই আমাদের লজ্জিত হয়ে ছোট হবার চেষ্টায়! বুঝলেন? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]