• প্রচ্ছদ » সাবলিড » রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন না হওয়ার দায় মিয়ানমারের, বললেন ড. আকমল হোসেন


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন না হওয়ার দায় মিয়ানমারের, বললেন ড. আকমল হোসেন

আমাদের নতুন সময় : 20/06/2019

জুয়েল খান : রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে বাংলাদেশ নতুন করে কূটনৈতিক উদ্যোগ নিচ্ছে। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায় অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী এখন বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে উপলব্ধি করছেন। তিনি সাম্প্রতিক তার বিদেশ সফরের প্রতিটিতে অপর পক্ষকে এ সমস্যার গভীরতা বুঝিয়ে তাদের ভূমিকা প্রত্যাশা করেছেন। তাতে স্পষ্ট করে বলেছেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে আগ্রহী নয়। রাষ্ট্রপতিও তাজিকিস্তানে অনুষ্ঠিত সিআইসিএ সম্মেলনে বলেছেন, এ সমস্যার সমাধান না হলে তা পুরো এশিয়াকে অস্থিতিশীল করে তুলবে। অন্যদিকে বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে সম্প্রতি কথা বলেছেন। সেখানে তিনি বিশ্ব সম্প্রদায়কে প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমারের উপর চাপ দিতে অনুরোধ জানান। পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, প্রত্যাবাসন নিয়ে মিয়ানমার ‘ডাহা’ মিথ্যা বলছে। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার জন্য বারবার আশ্বাস দিয়েও কথা রাখছে না তারা। প্রধানমন্ত্রী আগামী মাসে চীন সফরে গিয়ে রোহিঙ্গা ইস্যু সামনে রেখে আলোচনা করবেন বলে মনে করেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. আকমল হোসেন।

তিনি বলেন, প্রত্যাবাসন না হওয়ার দায় কোনো জাতিসংঘ সংস্থার উপর চাপানোর প্রবণতা ঠিক বলে মনে হয় না। বরং উপলব্ধি করা দরকার, মিয়ানমারই এর জন্য দায়ী। মিয়ানমারকে বিশ্বাস করে বাংলাদেশ আগে ঠকে গেছে… তা বর্তমানে প্রকাশ পাচ্ছে। মিয়ানমারের প্রতি বাংলাদেশের মোলায়েম দৃষ্টিভঙ্গি কাজে আসেনি। মিয়ানমারের ব্যাপারে বাংলাদেশ তার বন্ধু দেশগুলোর সবাইকে বোঝাতে পেরেছে বলে মনে হয় না। তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ভারত ও চীন, দু’দেশই তাকে প্রয়োজনীয় সমর্থন দেয়নি। আরো আগে প্রধানমন্ত্রী চীন সফর করে মিয়ানমারের শঠতার বিষয়টি চীনা নেতৃবৃন্দকে বোঝাতে পারতেন। দ্বিপক্ষীয় আলাপ-আলোচনা করার চীনের পরামর্শ যে মিয়ানমারের কারণে ফলপ্রসূ হচ্ছে না, তা তাদের নজরে আগেই আনা যেতো। মিয়ানমারকে যেমন চীনের প্রয়োজন, সেভাবে এ অঞ্চলে ভারতের সঙ্গে ভারসাম্যের জন্য বাংলাদেশকেও প্রয়োজন। সুত্র : সমকাল

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]