আগামীকাল ২ কোটি ২০ লাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল

আমাদের নতুন সময় : 21/06/2019

আনিস তপন : আগামীকাল শনিবার জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনে ৬ মাস থেকে ৫ বছর বয়সী প্রায় দুই কোটি ২০ লক্ষ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এর আগে ফেব্রƒয়ারীতে প্রথম দফায় সোয়া দুই কোটি শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়নো হয়েছে। এবার দ্বিতীয় দফার ক্যাম্পেইনেও প্রায় একই সংখ্যক শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তিনি বলেন, এবার এক লাখ ২০ হাজার স্থায়ী এবং ২০ হাজার ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টিকাকেন্দ্র খোলা থাকবে জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, শিশুদের জোর করে বা কান্নরত অবস্থায় এবং খালি পেটে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল না খাওয়ানো ভালো। একই সঙ্গে ৬ মাসের কম বয়সী ও ৫ বছরের ঊর্ধ্বে শিশুদের এবং অসুস্থ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না বলেও এসময় জানান তিনি।

এই কার্যক্রমকে সফল করতে সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা, জেলা, উপজেলায় অবহিতকরণ সভা এবং দুই লাখ ৮০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে  প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ভিটামিন এ এর অভাব পূরণে বছরে দুই বার শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।

সংবাদ সম্মেলণে এসময় ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখায় গত ছয় মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে বিভিন্ন দ- দেয়া হয়েছে। এসময় ওষুধ বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে ৩৭০টি মামলা দায়ের করা হয় এবং পাঁচজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- দেয়া হয়।

সাংবাদিকরা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ওষুধের দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ পাওয়ার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্যসচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, ওষুধে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া একটি চলমান প্রক্রিয়া। ১০০ শতাংশ ওষুধের দোকানেই মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ থাকতে পারে। তবে সেই ওষুধ বিক্রি হচ্ছে কি না, তা প্রমাণ করা কঠিন।

তবে একই সময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, কোনো দোকানে যেন মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ না থাকে। কোনো মানুষের কাছে যেন তা না যায়, সে বিষয়ে  মন্ত্রণালয় সর্বোচ্চ উদ্যোগ নিবে। খুব শিগগির সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ওষুধ পরিস্থিত এবং সরকার কী করছে তা দেশবাসীকে জানানো হবে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]