স্বপ্ন

আমাদের নতুন সময় : 21/06/2019

শরাফত আলী

প্রতিদিনে যানজট কেড়ে নেয় এক টুকরো জীবন
অনড় বাসের জানালায় বসে থাকি,
রাজপথের পাশের রেস্তোরাঁ থেকে
উড়ে আসে খাবারের সুঘ্রাণ।
আনমনে সিগারেটের জন্য পকেটে হাত যায়
খালি হাত বের করে আনি সহযাত্রীদের কথা ভেবে।

অফিসে হঠাৎ বিদ্যুৎ চলে যাওয়া কিংবা
নেটের গতি ধীর হয়ে যাওয়া ক্লান্তি আনে,
সব যান্ত্রিকতার মধ্যে দীর্ঘশ্বাস পড়ে
সেটা যান্ত্রিক হয়ে যায়নি বলে।

অফিস থেকে ক্লান্ত আমি ধীরে ধীরে যাই
টিএসসি পার হয়ে হাকিমের চায়ের দোকানে।
বহুদিনের অভ্যাস এক কাপ চা নিয়ে বসি,
আনমনে অপেক্ষা করি যদি আসে ঐন্দ্রিলা।
ঐন্দ্রিলা আসে না,
সস্তা সিগারেটের ধোঁয়া বিস্বাদ লাগে।

সন্ধ্যা মিলানোর বহু পরে,
বাসায় ফিরি তেতো মুখে।
কৃষ্ণপক্ষে আকাশে অজ¯্র
নক্ষত্রের মধ্যে চেয়ে থাকি লুদ্ধকে’র দিকে
তার অশ্রæ পান করা ঝিনুক খুঁজে নেই কল্পনায়
তার বুক থেকে মুক্তো
খুলে পরিয়ে দেই ঐন্দ্রিলা তোমার অনামিকায়।

দোল পূর্ণিমায় চরাচর প্লাবিত জ্যোৎস্নায়
ঐন্দ্রিলা তুমি এসে পাশে দাঁড়াও
গভীর মমতায় হাত রাখ আমার হাতে
তখন মনে হয়, সুখ-শান্তি
এই পৃথিবীতে অলীক কোনো কিছু নয়।

ঐন্দ্রিলা আর কখনোই আসবে না জেনেও
এক স্বপ্নের ঘোরে জীবন চলে আমার।
তীব্র ব্যথায় যখন অস্থির হয়ে পড়ি
তখন মায়ের কাছে যেতে মন চায়।
শনিবার হাঁটতে হাঁটতে পৌঁছে যাই বাড়ি,
মা উতল হয়ে ওঠেন বহুদিন পর ছেলে আসায়
ঝলমল করে ওঠে তার ক্লান্ত মুখ।

রাতে মা বসে থাকেন খাবার নিয়ে
একমাত্র মায়ের কাছেই পুত্র পায়
নিঃস্বার্থ ভালোবাসা।

জীবন চায় জীবন
ভালোবাসা চায় ভালোবাসা
প্রেম খুঁজে নেয় প্রেম।
জীবনের সব অদ্ভুত ইচ্ছাগুলো
হাতের রেখার মতোই,
হাতের মুঠোয় থেকেও নিয়ন্ত্রণহীন।

গরমে ঘুম আসে না এপাশ ওপাশ করি
তবু একসময় ক্লান্ত শরীরে
নেমে আসে শান্তির ঘুম।

ভৈরবী রাগে ঘুম ভাঙে, নিমেষে মনে পড়ে
ত্রিশ বছর আগে আমার বাইশে
যেদিন সত্যিই এসেছিলো ঐন্দ্রিলা এই ঘরে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]