• প্রচ্ছদ » » তরুণরা দেশের আগাছা হবে, কারও দ্বারা ব্যবহৃত হবে, নাকি সম্পদ হবে, সেই সিদ্ধান্ত তাদের নিজেরদেরই নিতে হবে


তরুণরা দেশের আগাছা হবে, কারও দ্বারা ব্যবহৃত হবে, নাকি সম্পদ হবে, সেই সিদ্ধান্ত তাদের নিজেরদেরই নিতে হবে

আমাদের নতুন সময় : 04/07/2019

লুৎফর রহমান হিমেল

নয়ন বন্ড। পুরো নাম সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড। জেমস বন্ডের নামের সঙ্গে মিলিয়েই হয়তো সে নিজেই তার নামের শেষের দিকে বন্ড নামটি ঝুলিয়ে দিয়েছিলো। রূপালী পর্দার বন্ড একজন নায়ক, কিন্তু বাস্তবের নয়ন বন্ড হয়েছে খলনায়ক। সেই খলনায়ক নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। তার গুলিবিদ্ধ মৃতদেহের ছবিটি দেখলাম। ক্রিকেটারদের মতো লম্বাটে একহারা গড়নের দেহখানা পড়ে আছে কলাপাতার বিছানায়। একজন সম্ভাবনাময় তারুণ্যের শেষ পরিণতি এই কলাপাতার বিছানা। সে ক্রিকেটার সাব্বির হতে চায়নি বা কেউ তাকে সে পথে নেয়নি। সে নয়ন বন্ড হয়েছিলো। যতোটুকু জানা যাচ্ছে, এই নয়ন বন্ড হওয়ার পেছনে স্থানীয় গডফাদার, প্রভাবশালী নেতা, মাদকের কারবারি, অসাধু পুলিশ, বড় ভাইয়েরা ভ‚মিকা রেখেছে। এ রকম অসংখ্য সাব্বির এখনো এই বাংলার আনাচে-কানাচে নয়ন বন্ড হয়ে উঠছে। তাদের ব্যবহার করছে পেছনের কেউ। এই তরুণদের ব্যবহার করা সহজ। এদের আবেগ বেশি, যুক্তি কম। এই সুযোগটিই লুফে নেয় সমাজের ওই সুবিধাবাদীরা। বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যকাÐের এক নম্বর আসামি এই নয়ন বন্ড। কিছুদিন আগে রিফাত শরীফ নামের এক তরুণ-যুবককে সকালবেলা শত শত মানুষের সামনে ফিল্মি কায়দায় নয়ন ও তার সহযোগিরা কুপিয়ে হত্যা করেছিলো। রিফাতের আত্মা কিছুটা হলেও এখন শান্তি পেয়েছে। বাকি আসামিদের ব্যাপারেও আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে বলে মনে হচ্ছে। এ পর্যন্ত পড়ে অনেকে মানবাধিকারের প্রশ্ন তুলবেন। আরও আরও অনেক প্রশ্ন তুলবেন। তুলুন। তবে এটিও ঠিক, মানবের জন্য মানবাধিকার। নয়ন ও তার সহযোগিরা আর মানব নয়। ফলে তাদের জন্য মানবাধিকারও প্রযোজ্য নয়। এরা সমাজের আগাছা। বিভিন্ন সরকারের সময়ে ক্ষমতাসীনদের আশ্রয়ে এ রকম হাজারো নয়ন বন্ড নামের আগাছা ছিলো এবং এখনো আছে সমগ্র বাংলায়…। তরুণরা দেশের আগাছা হবে, কারো দ্বারা ব্যবহৃত হবে, নাকি সম্পদ হবে, সেই সিদ্ধান্ত তাদের নিজেরদেরই নিতে হবে। তাদের অভিভাবকদেরই সেটি ভাবতে হবে, সচেতন হতে হবে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]