• প্রচ্ছদ » লিড ১ » বেইজিং বিমানবন্দরে লালগালিচা সংবর্ধনা, বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিকল্পনাকারীদেরও বিচার হবে, বললেন প্রধানমন্ত্রী


বেইজিং বিমানবন্দরে লালগালিচা সংবর্ধনা, বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিকল্পনাকারীদেরও বিচার হবে, বললেন প্রধানমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 04/07/2019

সমীরণ রায় : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যায় পরিকল্পনাকারীদের বিচার এখনও হয়নি। ভবিষ্যতে এদের বিচারও হবে।
গতকাল বুধবার বেইজিং-এ বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করে তারা ক্ষমতায় থাকলে দেশ উন্নত হয়। আর যারা পাকিপ্রেমে বিভোর থাকে ক্ষমতা গেলে তারা রসাতলে যায় তা প্রমাণিত।
শেখ হাসিনা বলেন, উন্নয়নের পথে অনেক বাধা আছে। তা অতিক্রম করেই এগিয়ে যাচ্ছি। যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছেন সেই স্বপ্ন পূরণ করাই আমাদের লক্ষ্য। তিনি বলেন, আমাদের বাজেটে বিদেশী অনুদান মাত্র শূন্য দশমিক ৮ ভাগ। আর উন্নয়নের উন্নয়নের ৯০ ভাগই করছি নিজস্ব অর্থায়নে।
তিনি আরও বলেন, যারা দেশের স্বাধীনতা চায় না তারাই একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। যারা দেশের স্বাধীনতা চায়নি তারা দেশকে পঙ্গু করে রেখেছে। তারা দেশের কোনো উন্নয়ন দেখতে পায় না। গণতান্ত্রিক পরিবেশ তাদের পছন্দ নয়। তারা অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখে।
প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, চীন ও ভারতের মতো সব দেশের দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ ও সরকার স্থিতিশীল আছে বলেই দেশে বিনিয়োগের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আমরা কারো সঙ্গে শত্রুতা নয় এই নীতি নিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।
বিমানবন্দরে লালগালিচা সংবর্ধনা : চীনের দালিয়ানে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনে যোগদান শেষে গতকাল সকালে বেইজিং বিমানবন্দরে পৌঁছুলে প্রধানমন্ত্রীকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান চীনের সহ-পররাষ্ট্র মন্ত্রী কিং গ্যাং। এ সময় তাকে গার্ড অব অনার দেয় চীনের সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল।
বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বেইজিংয়ের ডিয়াওইউতাই স্টেট গেস্ট হাউজে নেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রীকে। সফরকালে এখানেই অবস্থান করবেন শেখ হাসিনা।
আজ সকালে শেখ হাসিনা অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে যোগ দিবেন এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপল-এ বীরদের স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। পরে তিনি চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সঙ্গে একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপল-এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। এখানে ঢাকার সঙ্গে বেইজিংয়ের বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগিতামূলক একাধিক চুক্তি স্বাক্ষরের কথা রয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী গ্রেট হল অব দ্য পিপল-এ চীনের প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত এক ভোজসভাতেও যোগ দেবেন। একই দিন বিকেলে তিনি সিসিপিআইটিতে চীনের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সঙ্গে একটি বিজনেস রাউন্ডটেবিলে অংশ নেবেন।
কাল বিকেলে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাতে চীনা প্রেসিডেন্টের দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন তিনি। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]