• প্রচ্ছদ » » যেকোনো ব্যাপারে জ্ঞান দানে বাঙালির উৎসাহের সীমা নেই


যেকোনো ব্যাপারে জ্ঞান দানে বাঙালির উৎসাহের সীমা নেই

আমাদের নতুন সময় : 06/07/2019

ডা. ফাহমিদা শিরীন নীলা

বর্তমানকালে দেশের ফ্যামিলি প্ল্যানিং কর্মসূচিতে আমি খুবই আপসেট। শিক্ষিত জনগোষ্ঠী জন্মনিয়ন্ত্রণে সতর্ক। আর ওদিকে অশিক্ষিত জনগোষ্ঠী খুবই উৎসাহের সঙ্গে একের পর এক জনসংখ্যা বৃদ্ধি করে চলেছে। বাচ্চা মানুষ করা নিয়ে কোনো ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নেই। বাচ্চা চোর, বাটপার, ছেচ্চড়, গাঁজাখোর যাই হোক, সেটা নিয়ে কারো মাথাব্যথা নেই। ভবিষ্যতে সমাজের কি অবস্থা দাঁড়াবে বুঝতেই পারছেন। অশিক্ষিতের চাপে চিড়াচ্যাপটা হয়ে থাকবে শিক্ষিত গোষ্ঠী। এ নিয়ে ওদের চিন্তা থাকবে কেন? তারা দেদারসে উৎপাদন করে চলেছে। অজুহাতও বিচিত্র।
বেটা নেই। তিনটাই বেটি। বেটি নেই একটাও। বেটি না হলে হয়! না জানতেই চল্যা আসিছে প্যাটোত, কি করবিন! বড়ি ড্যাম আছলো ব্যান। ক্যাম্বা করে যে হলো! ছোলের বাপের শখ, আরেডা লিবি। মাসিক বন্ধ আছলো। কুটি থাক্যে ব্যান কি হয়্যা গেল!
বাঙালির নাকি তিন হাত। ডান, বাম ছাড়া আরেকটা হলো অজুহাত। এসব অজুহাত শুনতে শুনতে আমি বিরক্ত। তবে অবজারভেশন হলো এসব অশিক্ষিত/অর্ধশিক্ষিত জনগোষ্ঠীর জ্ঞানের স্বল্পতা। ‘অল্প বিদ্যা ভয়ঙ্করী’ কথাটা যিনি প্রথম উচ্চারণ করেছেন, তার পা ছুঁয়ে সালাম করতে ইচ্ছা করে। এদেশে ডাক্তারি করতে গিয়ে পদে পদে এই বাক্যের মাহাত্ম্য বুঝতে পারছি। বিষয়ভিত্তিক জ্ঞানের পরিসীমা যাই হোক, যেকোনো ব্যাপারে জ্ঞান দানে বাঙালির উৎসাহের সীমা নেই। সেইসঙ্গে বিনা পয়সার উপদেশ তো আছেই।
নিজেকে খাঁটি বাঙালি প্রমাণ করতে তাই আজ আপনাদের জন্য আমিও এই উপদেশ নিয়ে এলাম। উপদেশ না বলে একে অনুরোধও বলতে পারেন। ভাই-বোনেরা আমার, জীবনে অনুরোধে অসংখ্য ঢেঁকি গিলেছেন। আমার অনুরোধে না হয় আরেকটি গিললেন! কোলে একটা, পিঠে একটা, পেটে একটা এ রকম ফকিন্নি (!) দেখলেই ভিক্ষার বদলে এক পাতা জন্মনিরোধক বড়ি দান করুন। তবে সাবধান! সঙ্গে অবশ্যই বড়ি খাওয়ার নিয়মও বলে দেবেন। তা না হলে একপাতা পিল ছ’মাসে শেষ করে যেকোনো সময় পেটে আরেকটা নিয়ে এসে ড্যাম বড়ি দেয়ার অভিযোগে আপনাকে অভিযুক্ত করতে পারে।
লেখক : চিকিৎসক, এমবিবিএস, এফসিপিএস (গাইনি), ফিগো ফেলো (ইটালি), গাইনি কনসালটেন্ট, পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, বগুড়া




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]