• প্রচ্ছদ » » ‘ক্ষমতালোভীদের’ বিরুদ্ধে : রস-নিংড়ানো ‘পাকা-বামের আঁটি’ হাজি মেনন!


‘ক্ষমতালোভীদের’ বিরুদ্ধে : রস-নিংড়ানো ‘পাকা-বামের আঁটি’ হাজি মেনন!

আমাদের নতুন সময় : 07/07/2019

মাসুদ রানা

‘প্রথম আলো’য় প্রকাশিত এক সংবাদে পড়লাম, ‘বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন বলেছেন, দেশের রাজনীতি এখন আর রাজনীতিকদের হাতে নেই। হাতে গোনা কিছু লোকের কাছে রাষ্ট্রক্ষমতা বন্দি হয়ে আছে। জনগণের স্বার্থে ওই ক্ষমতালোভীদের কবল থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে।’ সংবাদটি পড়ে বেশ আমোদিত হলাম ব্যক্তিগত অনেক নিরানন্দের মধ্যেও। মনে হচ্ছে হাজি কমরেড রাশেদ খান মেনন জনগণের সঙ্গে কৌতুক করছেন। তিনি যে বললেন দেশের রাজনীতি ‘এখন’ আর রাজনীতিকদের হাতে নেই, তো এই ‘এখন’টি আসলে কখন? নিশ্চয় হাজি কমরেড বোঝাতে চেয়েছেন, এই ‘এখন’টির শুরু ঠিক তখন থেকে, যখন থেকে শেখ হাসিনার সরকারে তিনি ঠাঁই পাননি। অর্থাৎ বিষয়টি কি এমন যে, তিনি মন্ত্রী থাকলেই জনগণের ক্ষমতায় থাকা হয়, আর তিনি মন্ত্রী না থাকলে রাষ্ট্রক্ষমতা জনগণের হাতে থাকে না। রাশেদ খান মেননের মতো সমাজ-বিপ্লবের বুলি আওড়ানো মার্কসবাদীরা শেষ পর্যন্ত যখন মন্ত্রীত্ব পাওয়ার জন্য তাদের বহু উচ্চারিত আদর্শ জলাঞ্জলি দিয়ে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের নব্য বাকশালী শাসন প্রতিষ্ঠায় সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা শুরু করেন তখন শেখ হাসিনা বলেন, ‘পাকা-বাম’গুলো তার হাতে। কিন্তু আজ শেখ হাসিনা যখন এই ‘পাকা-বাম’গুলোকে পাকা-আমের মতো হাতের মুঠোয় কচলে ও চিপে রস নিংড়ে শুষ্ক আঁটি করে ছুড়ে ফেলে দিয়েছেন তখন বামের আঁটি হাজি কমরেড রাশেদ খান মেনন বলছেন, ‘জনগণের স্বার্থে ওই ক্ষমতালোভীদের কবল থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। আমি ভাবী : ‘ভ‚তের মুখে রাম নাম’ তবে কাকে বলা হয়? রাশেদ খান বুঝি ক্ষমতালোভী নন? প্রশ্ন হতে পারে : ‘ক্ষমতালোভী’ বিশেষণ ও ‘হাজি কমরেড রাশেদ খান মেনন’ বিশেষ্যের মধ্যে দূরত্ব বা নৈকট্য কতোটুকু? বিচারের ভার পাঠকের উপরই ছাড়ি না কেন। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]