• প্রচ্ছদ » » প্রসঙ্গ ধর্ষণ : সন্তানের ব্যাপারে নিজে সচেতন হওয়ার বিকল্প নেই


প্রসঙ্গ ধর্ষণ : সন্তানের ব্যাপারে নিজে সচেতন হওয়ার বিকল্প নেই

আমাদের নতুন সময় : 07/07/2019

মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে স্কুলের পর এবার ফতুল্লায় মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রতিষ্ঠান প্রধানকে আটক করা হয়েছে। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। খুঁজলে আরও পাওয়া যেতে পারে এমন ঘটনা। গ্রেপ্তার ও বিচারের সঙ্গে প্রশ্ন হলো… শিক্ষা ব্যবস্থায় এমন ধস নেমে এলো কেন? কেন শিক্ষকরা এমন ভয়াবহভাবে অধঃপতিত হলো? শিক্ষকতার মহান পেশাটিতে তারা কেন এভাবে কলঙ্কলেপন করছে? কেন অভিভাবক উদ্বিগ্ন এটা ভেবে যে, তার সন্তানকে কোথায় ভর্তি করেছেন?
সোজা উত্তর ত্রæটিপূর্ণ শিক্ষা ব্যবস্থা। নৈতিক শিক্ষার অভাব। উন্মুক্ত সুযোগ পাওয়ার পরও শিক্ষার্থী যেন সৃষ্টিকর্তার ভয়ে পাপের পথে পা না বাড়ান, শিক্ষক যেখানে এমন শিক্ষা দেবেন, সেখানে শিক্ষকেরই এমন কলঙ্কিত ও অভিশপ্ত অবস্থা কেন? কেন তারা শিক্ষার্থীর নিকট আদর্শস্থানীয় ব্যক্তি হওয়ার পরিবর্তে ঘৃণিত ও নিন্দিত চেহারা নিয়ে উপস্থিত হচ্ছেন? এসব ঘটনা নতুন প্রজন্মের মধ্যে ‘শিক্ষক’ সম্পর্কে কি ধারণা তৈরি করছে… এটা সবাইকে ভাবতে হবে। এ থেকে উত্তরণে শিক্ষা ব্যবস্থাকে নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে এবং শিক্ষাঙ্গনে প্রশ্নফাঁসসহ সকল অনৈতিক কাজ বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের আহŸান করছি। শিক্ষক যখন প্রশ্নফাঁস করেন, তখন আপনারা কেউ কেউ ভাবেন, এটা লঘু পাপ। এখন তো শিক্ষক অপরাধের চ‚ড়ান্ত পর্যায়ে চলে আসলো। আপনার মেয়ে যখন তার কাছে নিরাপদ কিনা প্রশ্ন উঠে, তখন আপনি কি করবেন, কি বলবেন? সুতরাং সতর্ক হোন হে সম্মানিত অভিভাবক। সন্তানের ব্যাপারে নিজে সচেতন হওয়ার বিকল্প নেই। সন্তান আপনার অনেক বড় সম্পদ। মানিক-রতনতুল্য এই সন্তানের লেখাপড়া, নৈতিক চরিত্র গঠনসহ সকল ব্যাপারে আপনাকেই রাখতে হবে প্রধান ভ‚মিকা। শিক্ষক সমাজকেও জেগে উঠতে হবে। কারও পাপের দায় অন্য কেউ নেবেন না। কেউ এসব করলে কোনো রকম অনুকম্পা পাওয়ার সুযোগ নেই। আপনি কি করবেন আর কি করবেন না কিংবা কি করতে পারেন আর কি করতে পারেন না, আপনি তা ভালো করেই জানেন। সুতরাং শিক্ষার্থীকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রথমে আপনাকে পবিত্র মনের অধিকারী হতে হবে। নিজের মধ্যে সেজন্য একটি পরিষ্কার কমিটমেন্ট থাকতে হবে। হাদিসের আলোকে বললে, দুই চোয়ালের মাঝখানের অঙ্গ (জিহŸা) এবং দুই উরুর মাঝখানের অঙ্গের (লজ্জাস্থান) হেফাজতের গ্যারান্টি দিলে আল্লাহর নবী আপনার জান্নাতের গ্যারান্টি দেবেন। (বুখারী, মিশকাত)। অজুর পর আমরা যে দোয়াটি পড়ি, তা অনুধাবন করুন। আমরা পড়ি, হে আল্লাহ, আপনি আমাকে তাওবাকারী ও পবিত্রতা অর্জনকারীদের অন্তর্ভুক্ত করুন। সংস্কৃত প্রবাদের আলোকে ‘পর দারে সু মাতৃবৎ’ বা পর স্ত্রীকে মা মনে করুন। সঙ্গে সঙ্গে সারাদেশে চলমান র‌্যাবের তাৎক্ষণিক অভিযানকে স্বাগত জানাই। জনস্বার্থে গণমাধ্যমকেও আরও বেশি সচেতন থাকতে হবে। লেখক : উপ-সম্পাদক, দৈনিক আমাদের নতুন সময়




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]