ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বললেন, জিয়ার কবর সরানোর ব্যাপারটা অরুচিকর, অগ্রহণযোগ্য ও সাংঘর্ষিক

আমাদের নতুন সময় : 08/07/2019

আমিরুল ইসলাম : সংসদ ভবন এলাকা থেকে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিসহ লুই আই কানের নকশাবহির্ভূত স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যোগ জোরালো হচ্ছে। জিয়াউর রহমানের কবরসহ আরও ছয়টি কবর উচ্ছেদ করা হবে। সংসদ ভবন এলাকা থেকে সরানো হবে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের বাসভবনও। জাতীয় সংসদের চলতি বাজেট অধিবেশনে এমন দাবির পক্ষে নড়েচড়ে বসেছে জাতীয় সংসদ সচিবালয় ও এর রক্ষণাবেক্ষণে দায়িত্বপ্রাপ্ত গণপূর্ত অধিদফতর। এ বিষয়টিকে কীভাবে দেখছেন জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেছেন, জিয়ার কবর সরানোর ব্যাপরটা একদিক থেকে যেমন অরুচিকর, অগ্রহণযোগ্য তেমনি সাংঘর্ষিকও।
তিনি বলেন, একটা মৃত মানুষের কবর সরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে কোথাও কোনোদিন এ ধরনের প্রস্তাব কোনো সরকারের পক্ষ থেকে আমরা আসতে দেখিনি। এটা যদি তারা বাস্তবায়ন করে তাহলে এটা জাতীয় পর্যায়ে একটা জঘন্যতম কাজ হবে, এটা ঠিক হবে না। এটা অগ্রহণযোগ্য এবং অনাকাক্সিক্ষত একটা পদক্ষেপ। তাদের বক্তব্য সঠিক নয়। নকশা পাকিস্তান আমলে হয়েছিলো। সে পাকিস্তান কোথায় ভেস্তে গেছে। নকশা অনুযায়ী সব কিছু চলছে না। এতো কাছাকাছি গণভবনের অবস্থানও ছিলো না। একটি বৃহত্তর জনসমষ্টির আবেগ ও মনমানসিকতা যেখানে আহত হবে এ রকম ব্যাপারে সরকারকে খুব সাবধানে এগোতে হয়, কথা বলার সময় খুব সাবধানে বলতে হয়। যাদের কবর সেখানে আছে তারা একেবারে ফেলনা মানুষ নয়। তাদের একটা অবদান ছিলো এ বাংলাদেশ সৃষ্টির ক্ষেত্রে। এ ব্যাপারগুলোকে সরকারের অত্যন্ত সাবধানতার সঙ্গে হ্যান্ডেল করা উচিত। আজকে ক্ষমতায় আছে বলে সরকার যা খুশি তা করবে এটা জনসাধারণ মেনে নেবে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]