নুসরাত পুড়িয়ে হত্যা মামলা ৭ম দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ আজ, দুইজনের সাক্ষ্য গ্রহণ

আমাদের নতুন সময় : 08/07/2019

এমরান পাটোয়ারী : নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৭ম দিনের তিন জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শেষ হয়েছে। গতকাল রবিবার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে কেরোসিন বিক্রেতা লোকমান হোসেন লিটন, বোরকা দোকানদার জসিম উদ্দিন ও দোকানের কর্মচারী হেলাল উদ্দিন ফরহাদের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শেষ হয়েছে। এ নিয়ে হত্যা মামলার ৮ জন সাক্ষির সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে।
গত ৬ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯ টায় সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার ছাদে কিলিং মিশনে অংশ নেয়া ৫ জন বোরকা পরে কেরোসিন ঢেলে নুসরাতকে হত্যা চেষ্টা করে। সেদিন নুসরাত বেঁচে গেলেও ১০ এপ্রিল রাতে নুসরাত ঢাকা মেডিকেল কলেজে বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।
মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী এম. শাহজাহান সাজু বলেন, রোববার তিনজনের সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হয়েছে। আজ সোমবার নুসরাতের ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান ও দোকানদার জহিরুল ইসলামের সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য দিন ধার্য করেছে আদালত।
এর আগে গত ২৭ জুন মামলার বাদী ও প্রথম সাক্ষী নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানের সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। পরে রাফির বান্ধবী নিশাত সুলতানা ও সহপাঠি নাসরিন সুলতানা, মাদ্রাসার পিয়ন নুরুল আমিন নৈশ প্রহরী মো. মোস্তফার সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষ হয়। সরকারি ছুটি ছাড়া প্রতিদিনই এ মামলার সাক্ষি কার্যক্রম চলছে।
এর আগে গত ২৭ জুন অভিযোগ গঠনের পর পরই ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে বাদীপক্ষের আটজন সাক্ষীকে আদালতে তাদের সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য উপস্থাপন করা হয়। ২০ জুন সাক্ষ্য গ্রহণের এই আদেশ দেন আদালত। এ মামলার চার্জশিট জমা দেয়ার আগে সাতজন সাক্ষী আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]