• প্রচ্ছদ » » বামের হরতাল : ‘ফাঁকা গুলিতে বাঘ শিকার’ ভাব!


বামের হরতাল : ‘ফাঁকা গুলিতে বাঘ শিকার’ ভাব!

আমাদের নতুন সময় : 08/07/2019

মাসুদ রানা

‘ওয়াইন্ডক্যাট স্ট্রাইক’ বা হরতাল হচ্ছে গণআন্দোলনের ‘কনফ্রন্ট্যাশনাল ফ্রেইজ’ বা সাংঘর্ষিক পর্যায়, যেখানে সরকারের স্বাভাবিক পরিচালনকে থামিয়ে দেয়া হয়। গণসম্পৃক্ত রাজনৈতিক শক্তির কাছে হরতাল একটি শক্তিশালী হাতিয়ার যা দিয়ে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে আঘাত করে। হরতাল হচ্ছে গণঅভ্যুত্থানের পূর্ববর্তী ধাপ। আর হরতালের পূর্ববর্তী ধাপ হচ্ছে গণসচেতনতা ও গণসম্পৃক্তি যা অর্জন করা হয় প্রচারাভিযান, সভা-সাবেশ, মিছিল-প্যারেড, বিক্ষোভ-প্রতিবাদের মধ্য দিয়ে। বাংলাদেশে সরকারের বাজেটের বিরুদ্ধে, গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে বামপন্থীদের হরতাল কর্মসূচি তাদের প্রজ্ঞা, বুদ্ধি, শক্তির দুর্বলতা নির্দেশ করে। সম্ভবত তারা পূর্ববর্তী ধাপগুলো অনুসরণ করতে অক্ষম বলেই হরতাল ডেকেছে আগামীকাল। অর্থাৎ বামপন্থীরা শ্রমসাধ্য, কষ্টসাধ্য গণসম্পৃক্তিমূলক প্রচারাভিযান, সভা-সমাবেশ, মিছিল-প্যারেড ও বিক্ষোভ-প্রতিবাদের পর্যায়ে না গিয়ে একটা হরতাল ডেকে বাস্তবে ফাঁকা গুলি দিয়ে নিজেদের বাঘা শিকারি হিসেবে দেখাতে চেয়েছে বলেই মনে হয়। হরতাল ডেকে তা পালিত হতে ব্যর্থ হলে আন্দোলনের টুল হিসেবে হরতাল-ডাকা জনগণের মধ্যে আবেদন হারায়। এতে ভালোর চেয়ে মন্দটাই বেশি হয়। তাই হরতাল ডাকা উচিত আন্দোলনের পরিস্থিতি পেকে উঠলে, যাতে এই হাতিয়ারটি দিয়ে সরকারকে কার্যকরভাবে আঘাত করা যায়। হরতাল ডেকে যে তা সফল করার জন্য পিকেটিং করতে হয়, সেটি করার ক্ষমতা বা সাহস কি বামপন্থীদের আছে? থাকলে ভালো, স্বাগত জানাই। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]