• প্রচ্ছদ » » সিটি কর্পোরেশন বা অন্য কোনো মন্ত্রণালয় কি পারে না ঢাকার সকল এলাকায় একটা করে লাশঘর নির্মাণ করতে?


সিটি কর্পোরেশন বা অন্য কোনো মন্ত্রণালয় কি পারে না ঢাকার সকল এলাকায় একটা করে লাশঘর নির্মাণ করতে?

আমাদের নতুন সময় : 08/07/2019

হাসান শান্তনু

ঢাকায় নিঃসন্দেহে এমন বাসিন্দা সংখ্যায় বেশি যাদের স্বাভাবিক, অস্বাভাবিক মৃত্যু হলেও পরিবারের অন্য সদস্যদের শোক ¯্রােতের সঙ্গে যোগ হয় ভয়াবহ দুর্ভোগ। কেউ গুমের শিকার হয়ে মারা গেলে মরদেহ শেষবারের মতো দেখতে না পাওয়ার যন্ত্রণা হৃৎপিÐের ভেতর আমৃত্যুই থেকে যায় পরিবার-পরিজনদের। কারও স্বাভাবিক, অস্বাভাবিক (মরদেহ পাওয়া গেলে) মৃত্যুর পর দাফনের আগে পর্যন্ত বা দাফনের উদ্দেশ্যে সমাধি এলাকায় নেয়া, গ্রামের বাড়িতে রওয়ানা হওয়ার আগের ক্ষণ পর্যন্ত দুর্ভোগের কবলে থাকেন স্বজনরা। মরদেহ রাখা, গোসল করানোর সুবিধা ছোট কক্ষের বাসায় থাকে না। থাকলেও কোনো কোনো মালিক লাশ রাখতে দেন না। আশপাশের গ্যারেজে গোসল করানো শেষে মরদেহ বাড়ির সামনের রাস্তায়ও প্রায় সময় রাখতে হয়। সিটি কর্পোরেশন বা অন্য কোনো মন্ত্রণালয় কী পারে না বেশ কয়েকটা ভবনের হিসাব করে সব এলাকায় একেকটা করে লাশঘর নির্মাণ করতে? সেখানে গোসল, স্বজনদের অবস্থানের মতো আলাদা কক্ষ থাকবে। এমনটা হলে চিরদিনের জন্য চলে যাওয়া মানুষটির শেষযাত্রা শোকাতুর হলেও দুর্ভোগমুক্ত হবে। যেসব সমাজ, রাষ্ট্রে একই পরিস্থিতি থাকলেও নাগরিকের শেষ বিদায়ের বিষয়ে এমন ব্যবস্থা নেই সেসব সমাজ, রাষ্ট্র প্রকৃত মানবিক হতে পারে না। ঢাকায় লাশঘর নির্মাণের মূল দায়িত্ব দুই সিটি কর্পোরেশনের হলেও যেকোনো মন্ত্রণালয়ই তা করতে পারে। যে কোনো মন্ত্রণালয়ের আমলা হোন আর হেন-তেনের মধ্য দিয়ে ‘অমরত্য’ লাভের যতোই কল্প-গল্প ছড়ান, জীবনের প্রয়োজনে তাকেও তো মরতে হবে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]