ধর্ষক দানবদের রুখতে ‘পুরুষ’ আপনিও ‘সোচ্চার’ হোন

আমাদের নতুন সময় : 10/07/2019

প্রফেসর ড. এম. শাহ্ নওয়াজ আলি : নারী আমাদের মা, বোন, স্ত্রী, কন্যাÑ তারাই আমাদের পৃথিবী। মানবজাতি সৃষ্টি তাদের মাধ্যমেই। তাদের প্রতি আমাদের সম্মান দেখাতেই হবে। কেউ শকুন দৃষ্টিতে তাকালে রুখে দিতে হবে। এগিয়ে আসতে হবে নারী নির্যাতকদের বিরুদ্ধে, নারী সংগ্রামের পক্ষে থাকতে হবে শক্তভাবে। নারীদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা, ভালোবাসা, আনুগত্য অনেকটাই হারিয়েছিলো, অতীতের বিভিন্ন সরকারের অপশাসনকালে। দেশে দীর্ঘদিন গণতান্ত্রিক আন্দোলন, সংগ্রাম, শুভবুদ্ধির প্রতি আমাদের যে শ্রদ্ধা তা নষ্ট হয়েগিয়েছিলো। বাঙালির সুস্থ চিন্তা, ধারণা থেকে আমরা অনেকটা দূরে ছিলাম। সেই পরিস্থিতি এখন বদলেছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশ পরিচালনাকালে নারীদের মর্যাদা অনেক উপরে উঠেছে। এই উন্নত মর্যাদাসনে থাকার পরও ধর্ষণের মতো কিছু অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটছে। যা মোটেও কারো কাক্সিক্ষত নয়।

দেশে এখন গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিরাজ করছে। ফলে নারীদের যে অর্জন, বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের যে বিচরণ তা বিশে^র অনেক দেশের কাছেই অনুকরণীয়। কিন্তু ধর্ষক দানবরা আমাদের নারীদের অর্জনের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে। যদিও তাদের রুখে দেবোই আমরা। তবুও খুব সম্প্রতি নারী-শিশু ধর্ষণের ঘটনাগুলো আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। ধর্ষণ-নির্যাতনের বিরুদ্ধে নারী একা লড়াই করে যাচ্ছে। তাদের এই লড়াই শুধু একার নয়, আমাদেরও। এই লড়াইয়ে আমাদেরও সামিল হতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যথার্থই বলেছেন, ধর্ষণের বিরুদ্ধে, ধর্ষকের বিরুদ্ধে পুরুষদের সোচ্চার হওয়া উচিত। প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান আমাদের সম্মান জানানো উচিত। যদিও প্রধানমন্ত্রীর এই আহ্বানের আগেই শক্তভাবে নারীদের লড়াইয়ে অংশগ্রহণ করা উচিত ছিলো আমাদের। কারণ মানুষ সৃষ্টি না হলে জগৎ অর্থহীন। নারীরা জগৎ টিকিয়ে রেখেছে। সভ্যতা টিকিয়ে রাখছে। ফলে নারীদের সম্মানের সঙ্গে বাঁচতে, এগিয়ে যেতে সকলকে সহযোগিতা করতে হবে। সৃষ্টিকে সচল রাখার জন্য, সময় এসেছে খুব জোরালো ও বলিষ্ঠভাবে নারীদের পাশে দাঁড়ানোর।

নারীরা মানসিকভাবে অত্যন্ত শক্তিশালী ও দৃঢ়তাসম্পন্ন। কিন্তু আজকে সমাজে নারীদের প্রতি যে অন্যায়-অত্যাচার, ধর্ষণ-নির্যাতন চলছে সেটা অনেকটা পুরুষদের শক্তির বহিঃপ্রকাশ। সেই শক্তি মানবিক নয়, দানবিক। দানবীয় শক্তিকে প্রতিহত করার জন্য পুরুষদেরই সোচ্চার হতেই হবে। মায়ের জাতি নারীদের সম্মান করে পুরুষদের প্রতিবাদী, সক্রিয় হওয়া দরকার, যাতে কোনোভাবেই নারী তার মর্যাদা হারানোর ভয়ে না থাকে। নারীদের ভয়মুক্ত একটি সমাজ আমাদের উপহার দিতে হবে। আমরা যে যেখানে, যে অবস্থায় থাকি না কেন, গ্রাম-গঞ্জে, শহর-বন্দর, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মজুর, উকিল-ব্যারিস্টার, কর্মকর্তা-কর্মচারী, লেখক-সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে ধর্ষকের বিরুদ্ধে, নির্যাতকের বিরুদ্ধে। নারীদের সমাজে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য আমাদের দৃঢ় ও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে। আমাদের লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে নারী অধিকার রক্ষায়। কোনো অবস্থাতেই দানবদের ছাড় দেওয়া যাবে নাÑ এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

লেখক : সদস্য, বাংলাদেশ বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]