রিকশা শ্রমিক ও মালিকদের অবরোধে ভোগান্তিতে রাজধানীবাসী

আমাদের নতুন সময় : 10/07/2019

ইসমাইল ইমু, আসিফ কাজল : রাজধানীর তিন সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের ঘোষণার প্রতিবাদে গতকালও মানব বন্ধন ও রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে রিকশা চালক ও মালিকেরা। এতে স্থবির হয়ে পড়ে রাজধানীতে যান চলাচল। কুড়িল বিশ্বরোড সড়কের অবরোধ চলাকালে এর প্রভাব পড়ে গোটা রাজধানীতে। চরম ভোগান্তিতে পড়েন হাজার হাজার মানুষ।

গতকাল সকাল ৭টা থেকে মহানগরীর বাড্ডা, উত্তর বাড্ডা, মুগদা, বিশ্বরোড, রামপুরা, মালিবাগ, খিলগাঁও, প্রগতি সরণিতে অবস্থান নেন রিকশা শ্রমিকরা। বাঁশ, দড়ি, কাঠ, ইট দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।

রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল কুদ্দুস ফকির বলেন, আমরা শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা যাতে কোনও গাড়ি ভাঙচুর না করে এ বিষয়ে বোঝানো হয়েছে।

অপরদিকে রিকশাচালকদের অবরোধে যান চলাচল বন্ধ ও দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সড়ক অবরোধ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন রিকশা শ্রমিকরা। রিকশাচালক রকিব হোসেন বলেন, রিকশা চালিয়ে বউ-পোলাপান নিয়ে আমাদের চলতে হয়। রিকশা না চালালে কী খাবো? সড়কে আমাদের রিকশা চালাতে দিতে হবে।

রিকশাচালকদের অবরোধের কারণে সকালে অফিসগামী মানুষ যেমন  ভোগান্তিতে পড়েছেন, তেমনি ভোগান্তিতে পড়েছেন প্রগতি সরণি, রামপুরা, খিলগাঁও এলাকা দিয়ে চলাচলকারীরা। অবরোধের কারণে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আব্দুস সালাম বলেন, ‘উত্তর বাড্ডা থেকে হেঁটে রামপুরা পর্যন্ত এসেছি। হেঁটেই হয়তো মতিঝিল পর্যন্ত যেতে হবে। এই ঘটনায় শিক্ষার্থীরাও ভোগান্তিতে পড়েছেন। মঙ্গলবার অনেক শিক্ষার্থী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারেননি। যাদের বাসা দূরের তাদের অনেকেই বাসায় ফিরে যেতে দেখা গেছে।

জাতীয় রিকশা-ভ্যান শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইনসুর আলী বলেন, আমরা চাই ঢাকা থেকে অবৈধ রিকশা তুলে দেওয়া হোক। পাশাপাশি যেসব সড়কে রিকশা নিষিদ্ধ করা হয়েছে, সেগুলো প্রত্যাহার করা হোক।

তবে বাংলাদেশ রিকশা মালিক সমিতির সভাপতি জামান বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করেছি। কর্মসূচি শেষ হওয়ার পরও একটি চক্র রাস্তা দখল করে রাখে। তারা আমাদের সংগঠনের কেউ না। সভাপতি জামান অভিযোগ করেন, সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে জামায়াত-বিএনপির একটি গ্রুপ রাস্তা অবরোধ করে রাখে। আগামীতে আমাদের কর্মসূচি হলো প্রধানমন্ত্রীকে স্মারক লিপি দেয়া। এছাড়া রাজধানীতে চলমান অবৈধ রিকশা এবং ব্যাটারিচালিত রিকশা উচ্ছেদ এর দাবিতে আন্দোলন করা। তবে জনভোগান্তি সৃষ্টির কোন উদ্দেশ্য আমাদের নেই।

প্রসঙ্গত, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন রাজধানীর বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে রিকশা চলাচল নিষিদ্ধ করেছে। গত ৭ জুলাই থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]