• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রতি সপ্তাহে একটি করে দুর্যোগ আঘাত হানছে, সতর্কবার্তা জাতিসংঘের আগামী দুই দশকে দুর্যোগ সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণে প্রয়োজন ২ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলার


জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রতি সপ্তাহে একটি করে দুর্যোগ আঘাত হানছে, সতর্কবার্তা জাতিসংঘের আগামী দুই দশকে দুর্যোগ সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণে প্রয়োজন ২ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলার

আমাদের নতুন সময় : 11/07/2019

নূর মাজিদ : উন্নয়নশীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের ব্যাপক ক্ষতি মোকাবেলায় প্রস্তুতির আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘ সতর্ক করে বলেছে, প্রতি সপ্তাহে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট গড়ে একটি দুর্যোগ এখন সারা বিশ্ব জুড়ে আঘাত হানছে। এই বিষয়ে উন্নয়নশীল দেশগুলোর যে পূর্ব প্রস্তুতি এবং সহায়ক অবকাঠামো দরকার তার অধিকাংশই অনুপস্থিত। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এই বিষয়ে তেমন কোন আলোচনাও হচ্ছেনা। যেটা আরো বড় উদ্বেগের বিষয়। কারণ এখন খুবই জরুরী ভিত্তিতে এসব দেশে সহায়ক অবকাঠামো নির্মাণ করা দরকার। চলতি সপ্তাহে জাতিসংঘ মহাসচিবের দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবেলা বিষয়ক বিশেষ দূত মামি মিজুতরি এসব কথা বলেন। সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান।

জাতিসংঘ দূত এমন সতর্কবার্তা দিয়েছেন যখন মোজাম্বিকে আঘাত হানা প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝর ইদাই ও কেনেথ এবং ভারতের দীর্ঘ খরা আন্তর্জাতিক শিরোনামের তালিকা দীর্ঘ করেছে। যদিও, বড় দুর্যোগ ছাড়াও অসংখ্য ছোট-খাট ঘটনা বিশ্বজুড়েই ঘটছে প্রায় প্রতিদিন। যার দিকে বিশ্ব গণমাধ্যমের অতোটা নজরও নেই।

মিজুতরি বলেন, ‘এই সকল দুর্যোগে প্রাণহানি, আবাসন হারিয়ে উদ্বাস্তু সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এবং সাধারণ মানুষের দুর্ভোগের সংখ্যাও পাল দিয়ে বাড়ছে। আমাদের পূর্ব ধারণার চাইতেও অনেক ঘন ঘন এখন জলাবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট দুর্যোগ বিশ্বজুড়ে আঘাত হানছে। এটা আর আগামী দিনের কোন শঙ্কার পর্যায়ে নেই, বরং নিষ্ঠুর বর্তমান পরিস্থিতি।’

এর মাধ্যমে জাতিংঘের বিশেষ দূত জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দীর্ঘমেয়াদি প্রস্তুতির পাশাপাশি বর্তমান নাজুক পরিস্থিতির দিকেও নির্দেশ করেন। যার আশু সমাধান প্রয়োজন। এই বিষয়ে জনসচেতনতার গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, এখন সকলকেই জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা এবং সহনশীল কাঠামো নির্মাণের আলোচনায় অংশ নিতে হবে। নাগরিক উদ্যোগের পাশাপাশি সকল দেশের সরকার, বেসরকারি সংস্থা এবং দাতা গোস্থীগুলোরও উচিৎ এর সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করা।

জাতিসংঘের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার হিসেবে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট দুর্যোগে প্রতিবছর বিশ্বে ৫২ হাজার কোটি ডলার সমমূল্যের স¤পদ ক্ষতিগ্রস্ত  হচ্ছে। এই সকল দুর্যোগ মোকাবেলায় সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণেও প্রচুর বিনিয়োগ প্রয়োজন। শুধুমাত্র বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণেই সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণে আগামী দুই দশকে ২ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলার প্রয়োজন। তবে সার্বিকভাবে সকল ধরণের প্রভাব সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণ খরচ বর্তমানের চাইতে মাত্র ৩ শতাংশ বেশি।

মিজুতরি জানান, এটা কোন টাকাই না। কিন্তু, বিনিয়োগকারীরা সেভাবে এগিয়ে আসছেন না। দুর্যোগ সহনশীলতাও একটি পণ্য বা সেবা হতে পারে, অর্থের বিনিময়ে মানুষ যার সুবিধা নিতে পারবে। এমনটা করা হলে, বিনিয়োগকারীরা উৎসাহী হতে পারেন। যদিও এমনটা করতে হলে আগে দুর্যোগ সহযোগী আবাসন, যোগাযোগ কাঠামো যেমন সড়ক ও রেলপথ ইত্যাদি নির্মাণের একটি সরল মানদ- নির্ধারণ করতে হবে। কারখানা, বিদ্যুৎ উৎপাদন, পানি সরবরাহ ব্যবস্থাসহ অন্যান্য অবকাঠামোও এর আওতায় পড়বে। এগুলো এমনভাবে নির্মাণ করতে হবে যাতে আকস্মিক বন্যা, ক্ষরা, ঝড় ইত্যাদি প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলার সক্ষমতা স্থাপনাগুলোর থাকবে। সম্পাদনা : ইকবাল খান

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]