সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

আমাদের নতুন সময় : 11/07/2019

রমজান আলী : ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) কিছু কর্মকর্তার যোগসাজশে প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে চার কোটি টাকার ঋণ অনুমোদন করিয়ে নেয়া হয়। পরে ‘রাষ্ট্রের একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির’ নামে হস্তান্তর দেখিয়ে আত্মসাৎ ও অর্থ পাচার করা হয়। এমন এক অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে অনুসন্ধান করছিলো দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এতোদিন সেই ‘গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির’ নাম প্রকাশ না করলেও আজ বুধবার মামলা করার মাধ্যমে সেই ব্যক্তির নাম আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করল সংস্থাটি। সেই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিটি হলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এস কে সিনহা)।

বুধবার দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে সংস্থাটি। মামলায় ফারমার্স ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম শামীমসহ ৬ কর্মকর্তাও আসামি হয়েছেন। আসামি হয়েছেন এস কে সিনহার কথিত পিএস রঞ্জিত ও তার স্ত্রী।

দুদক সূত্র জানায়, গত বছরের জানুয়ারিতে এ অনুসন্ধান শুরু হয়। ফারমার্স ব্যাংকে জালিয়াতির ঘটনা অনুসন্ধান করতে গিয়ে বিষয়টি নজরে আসে দুদকের। দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে কমিশনে প্রতিবেদন জমা হয়। আজই কমিশন মামলার অনুমোদন দিলে সৈয়দ ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলার আসামিরা হলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, ফারমার্স ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম শামীম, ব্যাংকটির সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট, সাবেক ক্রেডিট প্রধান গাজী সালাহউদ্দিন, ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বপন কুমার রায়, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও গুলশান শাখার সাবেক ব্যবস্থাপক মো. জিয়া উদ্দিন আহমেদ, গুলশান শাখার ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট শাফিউদ্দিন আসকারী, ভাইস প্রেসিডেন্ট লুৎফুল হক, এস কে সিনহার কথিত পিএস রণজিৎ চন্দ্র সাহা, রঞ্জিতের স্ত্রী সান্ত্রী রায় (সিমি), টাঙ্গাইলের মো. শাহজাহান ও নিরঞ্জন চন্দ্র সাহা। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান

 

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]