চট্টগ্রাম বন্দরে ব্যাপক জাহাজজট

আমাদের নতুন সময় : 12/07/2019

আলীউর রহমান : চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজজট ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বহির্নোঙরে পণ্য খালাসের সব কার্যক্রমই গত পাঁচদিন ধরে মুখ থুবড়ে পড়েছে। কর্ণফুলী নদীতে নোঙর করে রাখা শত শত লাইটারেজ জাহাজের একটিও গত পাঁচদিন বহির্নোঙরে পণ্য খালাস করতে যায়নি। প্রবল বর্ষণের পাশাপাশি সাগর উত্তাল হওয়ায় লাইটারেজ জাহাজের পক্ষে মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য খালাস সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে বহির্নোঙরে অলস জাহাজের সারি ক্রমে দীর্ঘ হচ্ছে। গতকাল চল্লিশটিরও বেশি জাহাজ অলস বসেছিল। আজ কালের মধ্যে আরো বেশ কয়েকটি খোলা পণ্যবাহী লাইটারেজ জাহাজ বহির্নোঙরে পৌঁছবে। খোলা পণ্যবাহী জাহাজের এই জট সামাল দিয়ে পণ্য খালাস স্বাভাবিক করতে বেশ কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। অপরদিকে চট্টগ্রাম বন্দরের অভ্যন্তরেও পণ্য খালাস মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়েছে বৃষ্টির কারণে। বিশেষ করে খোলা পণ্যবাহী জাহাজের হ্যান্ডলিং কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। কন্টেনার খালাসের কার্যক্রমেও চলছে স্থবিরতা। রাস্তার যানজট পরিস্থিতিও বন্দর থেকে কন্টেনার খালাসে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। বন্দরের ইয়ার্ডে ইয়ার্ডে কন্টেনারের পাহাড় গড়ে উঠছে। বহির্নোঙরে কন্টেনারবাহী জাহাজের সারিও ক্রমে দীর্ঘ হচ্ছে। ডব্লিউটিসির দায়িত্বশীল একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন,

শুক্রবারে যেসব জাহাজ পণ্য খালাস করতে বহির্নোঙরে গিয়েছিল সেগুলোও পণ্য বোঝাই করতে পারেনি। বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মোহাম্মদ ওমর ফারুক জাহাজজটের কথা অস্বীকার করে বলেছেন, জট হওয়ার কোন কারণ নেই। বৃষ্টি ও রাস্তার যানজটের কারণে কিছুটা সমস্যা হয়েছে। বন্দরের ভেতরে জেটির জাহাজগুলো চলে গেলে বাইরের জাহাজগুলো জেটিতে চলে আসবে। ফলে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজ বলেন, বর্ষাকালে স্বাভাবিক কার্যক্রম কিছুটা ব্যাহত হয়। তবে জট হওয়ার কোন কারণ নেই। আমাদের ইয়ার্ড অনেক বৃদ্ধি করা হয়েছে। আমরা ইচ্ছে করলে ৫৫ হাজার টিইউইএস কন্টেনার রাখতে পারবো। বৈরি আবহাওয়া ও বৃষ্টির কারণে কিছুটা সমস্যা হলেও আসলে বড় কোন সংকট তৈরি হবে না। আমাদের সক্ষমতা আরো বাড়ানোর জন্য ইক্যুপমেন্ট সংগ্রহ, ইয়ার্ড ও টার্মিনাল নির্মাণের কার্যক্রম দ্রুতগতিতে চলছে। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]