চাঁদে পদার্পনের ৫০ বছর, মানুষের আবর্জনা রয়েছে আমাদের উপগ্রহেও

আমাদের নতুন সময় : 12/07/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : চাঁদের পিঠে রয়েছে ৩টি, ৬টি মার্কিন পতাকা, কয়েক ডজন প্রোব। এগুলো হয় চাঁদে সফলতার সঙ্গে অবতরণ করেছে অথবা ভূপাতিত হয়েছে। এছাড়াও চাঁদে পড়ে আছে অজ¯্র যন্ত্রপাতি, ক্যামেরা, ভগ্নাবশেষ। যা একসময় প্রয়োজনীয় হলেও এখন ¯্রফে আবর্জনা। এএফপি। ২০ জুলাই উদযাপিত হবে চাঁদে মানুষের অবতরণের ৫০ তম বার্ষিকী। এই উপগ্রহে আমরা নিজেদের পায়ের ছাপ যেমন এঁকেছি তেমনি চাঁদকে করেছি নোংরা, কলঙ্কময়। কিছুকিছু গবেষক মনে করেন ভবিষ্যতে চাঁদকে পর্যটক এবং মানুষের কার্যক্রম থেকে রক্ষা করার জন্য এখনই উদ্যোগী হতে হবে। ১৯৫৯ সালে প্রথমবারের মতো চাঁদে অবতরণের চেষ্টা করে সোভিয়েত প্রোব লুনা-২। এটি চাঁদের বহির্ভাগে বিধ্বস্ত হয়। ৩৯০ কেজির প্রোবটির ভগ্নাংশ এখনও চাঁদে আবর্জনা হিসেবেই ছড়িয়ে আছে। ১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই মানুষ হিসেবে চাঁদে প্রথম পা রাখেন নিল আর্মস্ট্রং ও এডুইন অলড্রিন। তারা ২২ ঘন্টা চাঁদের ‘নিস্তবদ্ধতার সাগরে’ কাটিয়েছেন। তারা চাঁদে ফেলে এসেছিলেন অবতরনে মডিউলের জন্য ব্যবহৃত মঞ্চ, ক্যামেরা, চন্দ্রবুট, যোগাযোগের যন্ত্র এবং পাথর সংগ্রহের ৪টি যন্ত্র। তারা মনে করেন এগুলো ছিলো চাঁদের জন্য পৃথিবীর সুভ্যেনির। কিন্তু আমাদের উপগ্রহটিতে এগুলো আবর্জনা ছাড়া আর কিছুই নয়।

আরো ৫টি সফল অ্যঅপোলো অভিযান আরো অজ¯্র বস্তু চাঁদে ফেলে এসেছে। চাঁদে এমন শতাধিক স্থান আছে, যেখানে মানুষ ‘স্মৃতিচিহ্ন’ রেখেছে। মানুষ এটিকে চাঁদে  বা মহাশূণ্যে রাখা মানুষ্য নিদর্শন ভাবলেও তা চাঁদকে কলঙ্কিত করছে। চাঁদে থাকা মানুষ্য আবর্জনার পরিমাণ কমপক্ষে ১৬৭ টন। সম্পাদনা : ইকবাল খান

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]