হঠাৎ করে গ্যাসের দাম বাড়ায় সংসদে রওশনের ক্ষোভ

আমাদের নতুন সময় : 12/07/2019

আসাদুজ্জামান সম্রাট : গ্যাসের দাম হঠাৎ করে বাড়ানোয় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন  বিরোধী দলের উপ নেতা ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। তিনি বলেন, হঠাৎ করে গ্যাসের দাম কেন বাড়ানো হলো। আমি শুনেছি, আমরা উন্নয়ন চাই, কিন্তু গ্যাসের দাম বাড়াতে চাই না। এটা জনগণের কথা আমার কথা না। যেদিন বাজেট পাস হলো সেদিন গ্যাসের দাম বাড়ানো হলো। গণশুনানীর পর দেখা গেল গ্যাসের দাম বেড়ে গেলে। আমরা যখন গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দিলাম, তখন ভারতে গ্যাসের দাম কমিয়ে দিল। ঘরে রান্নার গ্যাসের দাম ১০০ টাকা কমিয়ে দিল। শিশু নির্যাতন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে নির্যাতনকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান। গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদের বাজেট অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় সংসদে সভাপতিত্ব করেন স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরী।

অসহায় শিক্ষকদের প্রতি মানবিকতার হাত বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন রওশন এরশাদ বলেন, এমপিও ভুক্তি বঞ্চিত শিক্ষকরা আন্দোলন করছে। তারা বেতন পাচ্ছেন না। এই অসহায় শিক্ষকদের প্রতি মানবিকতার হাত বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানাই। শিক্ষামন্ত্রী বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার অনুরোধ। বিরোধী দলীয় উপ নেতা বলেন, স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে আমাদের ছেলেমেয়েরা অন্য রকম জগত তৈরী করছে। এটা হাত থেকে যদি তাদেরকে বাঁচানো না যায় তাহলে ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ তারা কীভাবে নেতৃত্ব দেবে। এটা থেকে উত্তরণের জন্য আমাদের রাস্তা খুজতে হবে। অনেক জায়গা আছে ফেসবুক নাই। তারা যদি সারারাত জেগে স্মার্ট ফোন দেখে। ঘুম নাই, লেখা পড়া নেই। একেকটার চেহারা কেমন হয়ে যায়।

তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নের সঙ্গে দিনরাত পরিশ্রম করে তথ্য সরবরাহ করেন গণমাধ্যম কর্মীরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকদের উন্নয়নে কোনো সরকারী গুরুত্ব দেয় না। যদিও বর্তমান সরকারের সময় গণমাধ্যম কর্মীদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, সাংবাদিকদের ওয়েজ বোর্ড দ্রুত বাস্তবায়নে গুরুত্ব দেবেন। ওয়েজ  বোর্ড যেন সাংবাদিকরা পায় সেটি বাস্তবায়নে তথ্যমন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করার অনুরোধ করেন।

তিনি বলেন, খাদ্য ভেজার এখনো বন্ধ হয় নাই। ঔষধ আর খাদ্য মানুষের অনেক বেশি মৌলিক উপাদান। এই দুটি উপাদান ছাড়া মানুষ বাচতে পারে না, চলতেও পারে না। আমাদের ছোট ছোট শিশুরা যদি ভেজাল খাদ্য খায় তাহলে দেশ গড়ার কাজ করবে কীভাবে? বাচ্চাদের খাবারের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে। কারণ এই বাচ্চারাই ভবিষ্যতে এই দেশকে নেতৃত্ব দেবে।

রওশন বলেন, ছোট ছোট বাচ্চাদেরকে ধর্ষণ করা হচ্ছে। বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে। এই ধরণের শিশু নিযাতন কেন গড়ে উঠেছে? বিশেষ করে স্কুলে-মাদ্রাসায় কোনো জায়গায় আমাদের বাচ্চারা সুরক্ষিত না, নিরাপদ না। যদি নিরাপদ না হয় তাহলে লেখাপড়া করবে কীভাবে? নুসরাতের মতো যদি জীবন দিতে হয় এটা দু:খ জনক। আমাদের দেশে আইন আছে। আমি সরাসরি বলতে চাই, এদের মৃত্যুদন্ড দিতে হবে। ইদানিং দেখা যাচ্ছে অনেক বেশি। কোনো জায়গাতে বাচ্চারা নিরাপদ না। এই ধরণের অবস্থা আগে ছিল না। এ সময় আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, তাদের দ্রুত শাস্তি দেওয়া উচিত। মামলাগুলো ঝুলিয়ে না রেখে তাদের শাস্তি দেওয়া উচিত।

রওশন বলেন, ধানের এই অবস্থা হলো কেন? এই রকম হলে তো কৃষকরা আর ধান চাষ করবে না। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে কৃষকদের হানডেড পার্সেন ভর্তুকী দেয়। কৃষকদেরকে হানডেড পার্সেন্ট ভর্তুকি দিয়ে উৎসাহি করতে হবে। যাতে তারা ফসল উৎপাদন করে আমাদের খাদ্য সরবরাহ করতে পারে।

দেশের অর্থনীতি যেভাবে বাড়ছে সে ভাবে দরিদ্র কমছেনা। বাধাগুলো দুর করতে পারলে উন্নয়ন সমান তালে চলতে পারে। অর্থবছর পরির্তন করা দরকার। বর্ষকালে কাজ হয়না। তাই অর্থবছর পরিবর্তণ করা যায়কিনা সেদিকে দৃষ্টি দেয়া যায় কিনা প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। নারীদের উন্নয়ন শিশুদের মানসিক শাররিক উন্নয়ন করার ব্যাপরে সংশ্লিষ্টদেও প্রতি দৃষ্টি আর্কষন করেন।  বক্তব্যের শেষে জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের  উন্নয়নের বিভিন্নদিক তুলে ধরেন তিনি। সম্পাদনা : ইকবাল খান

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]