• প্রচ্ছদ » » একাত্তরের পরাজিত শক্তি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব


একাত্তরের পরাজিত শক্তি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব

আমাদের নতুন সময় : 13/07/2019

আলাউদ্দিন আল আজাদ

একাত্তর সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধিতাকারী পাকিদের দোসর, সাম্প্রদায়িক, ধর্মান্ধ অপশক্তি এবং আজকের তাদের উত্তরাধিকার নিজেদের বাঙালি বলেই স্বীকার করে না। তারা বাঙালি সংস্কৃতি ধারণ করেন না। তারা এতো বছর পরও স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য তাদের সবচেয়ে বেশি রাগ ভারতের উপর। কারণ ভারত সহায়তা ও সরাসরি হস্তক্ষেপ না করলে স্বাধীনতা সংগ্রাম সফল হতো না বলেই তাদের ধারণা। ভারতের প্রতি তাদের প্রচÐ আক্রোশ আর ক্ষোভ আমি প্রত্যক্ষ করেছি পাকি বীজে জন্ম নেয়া এমন কিছু লোকের সঙ্গে আলাপ করে। তাদের উদ্ভট, কাল্পনিক, অবাস্তব কথা শুনলে রক্ত গরম হয়ে যায়। এর একটি হলো শেখ মুজিব ছিলো ভারতের দালাল আর অনুচর, তাকে কোটি কোটি টাকা দিয়ে ষড়যন্ত্র করে পাকিস্তান ভাঙছে পাকিস্তানকে দুর্বল করার জন্য। পাকি দোসর, রাজাকার, আল বদরদের বর্তমান উত্তরাধিকার সংখ্যায় নেহায়েত কম নয়। তারা সংঘবদ্ধ, উগ্র, সাম্প্রদায়িক, ধর্মান্ধ। রাজনীতির মাঠ থেকে বিতাড়িত এবং পরাজিত হয়ে এরা এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধমে সরব। আসলে ক্রিকেট খেলা হলো একটা বাহানা বা উছিলা মাত্র। এরা সব সময় ভারতের বিরুদ্ধে খিস্তি খেউর, বিষোদগার করতে থাকে অথচ পাকিস্তানের বেলায় একবারে চুপ। ক্রিকেট খেলা নিয়ে এদের পোস্ট, মন্তব্য লক্ষ্য করলে দেখা যাবে ক্রিকেটের সঙ্গে এর কোনো সম্পর্কই নেই। আছে জাতিগত, ধর্মীয়, সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ। খেলা যার যার পছন্দের ব্যাপার, ভারতকে সমর্থন করতে হবে এমন কোনো কথা নেই, এমনকি ভারতের পরাজয়ে কেউ খুশি হলেও দোষের কিছু নেই। সবচেয়ে ভয়ংকর যে ব্যাপারটি লক্ষ্য করেছি তাহলো এসব তরুণদের ছাত্রলীগ, যুবলীগ নামধারী অনেকে আছে। এসব অপশক্তির একটা অংশ ক্ষমতার কাছাকাছি থাকার জন্য, স্বার্থ আর সুবিধা হাসিলের জন্য ছাত্রলীগ আর যুবলীগে নাম লেখাচ্ছে। আওয়ামী নেতৃত্ব কি এসব দেখছে না, বুঝছে না? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]