• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » ডেঙ্গু জর নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ ডা. এবিএম আবদুল্লাহর অধ্যাপক নজরুল বললেন, মশক নিধনের ওষুধ নিয়ে ঢিলেমি হচ্ছে


ডেঙ্গু জর নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ ডা. এবিএম আবদুল্লাহর অধ্যাপক নজরুল বললেন, মশক নিধনের ওষুধ নিয়ে ঢিলেমি হচ্ছে

আমাদের নতুন সময় : 13/07/2019

আশিক রহমান : ঢাকা মহানগরীতে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েছে। এ নিয়ে নগরবাসীর মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। দীর্ঘদিন ধরে মশক নিধনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে যে ওষুধ ছিটানো হয়, গবেষণায় দেখা গেছে, তার খুব একটা কার্যকারিতা নেই। সম্প্রতি দুই মেয়র সাঈদ খোকন ও আতিকুল ইসলামও তা স্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেছেন, মশক নিধনের ওষুধ কার্যকর না থাকলে নতুন ওষুধের ব্যবস্থা করা মেয়রদের দায়িত্ব এবং এ নিয়ে তাদের পূর্বপ্রস্তুতি থাকা উচিত। ডেঙ্গু জ¦র নিয়ে নগরবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের সাবেক ডিন ও চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ। তিনি বলেন, ডেঙ্গু জ¦র নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ও আতঙ্কের কিছু নেই। কারণ ডেঙ্গু জ¦র বিপজ্জনক নয়, যতোটা প্রচার আছে তার ন্যূনতমও নয়। ডেঙ্গু জ¦রে আক্রান্ত হলে অনেকে ভয় পেয়ে যান, এতোটা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। ডেঙ্গু জ¦র হলে মারা যাওয়ার আতঙ্কও অনেকের মধ্যে আছে, এটাও সঠিক নয়, মারা যাওয়ার সংখ্যা অতি সামান্য। সময়মতো চিকিৎসকের পরামর্শ নিলে ডেঙ্গু জ¦র ভালো হয়। যে কারও জ¦র হলে এটা ভাবার কারণ নেই যে, ডেঙ্গু জ¦র হয়েছে, সেটা ভাইরাস জ¦রও হতে পারে। জ¦র হলে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া জরুরি। যেহেতু এখন ডেঙ্গু জ¦রের প্রকোপ বেশি, ফলে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিলে খুব দ্রুত রোগ শনাক্ত করা যাবে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়াও সহজ হবে।

তিনি আরও বলেন, রোগের চিকিৎসার চেয়ে প্রতিরোধই সবচেয়ে উত্তম। ডেঙ্গু হয় মশার কামড় থেকে। এখন মশার কামড় থেকে নিজেকে যতোটুকু প্রটেকশন দেয়া যায় ততোই ভালো। দিনে কেউ ঘুমালে মশারি টাঙিয়ে ঘুমাবেন, বাচ্চারা যেন হাফপ্যান্ট না পরে ফুলপ্যান্ট পরে। ঘর-বাড়ি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। বাসার নিচে, বাথরুমে যেন পানি না জমে। ফুলের টবে যেন পানি না জমে। ঘরের আনাচে-কানাচে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে।

নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, মশক নিধনে কার্যকর পদক্ষেপ মেয়রদের কাছে প্রত্যাশা করছেন নগরবাসী। সময়মতো মশক নিধনের অভিযান চালু ও সঠিকভাবে পরিচালনা করা প্রয়োজন। এখানে নগরবাসীর সহযোগিতা যতোটুকু নেয়া দরকার সেটাও গ্রহণ করা যেতে পারে। কিন্তু মশক নিধনের প্রয়োজনীয় জিনিস সঠিকভাবে প্রয়োগ না করলে কোনো কাজে আসবে না। মশক নিধক ওষুধ অবশ্যই মানসম্পন্ন হতে হবে, এখানে আপোসের কোনো সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, কোন্ ওষুধ আপনার প্রয়োজন, ওষুধের মান ঠিক আছে কিনা তা তো আপনাকে আগেই ঠিক করতে হবে। প্রতি বছরই ডেঙ্গুর উৎপাত থাকে। সে অনুযায়ীই তো আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে। নগর পরিচালকদের পূর্ব প্রস্তুতি, কর্মদক্ষতা দেখাতে হবে কাজের মধ্য দিয়ে। যে টাকা খরচ হচ্ছে তার সঠিক ব্যবহার করতে হবে। মশক নিধনের বিষয়টি একটা ক্যাম্পেইনের মতো থাকতে হয়, একটা আন্দোলনের মতো। নগরবাসী ও মেয়রের কর্মীবাহিনীÑ সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। নগর ব্যবস্থাপনার কাজ সঠিকভাবে হচ্ছে না। কারণ সব কিছুতেই একটা ঢিলেমি আছে। মারাত্মক সমস্যা হিসেবে ডেঙ্গু হাজির হয়েছে নগরবাসীর সামনে। জীবন-মরণের প্রশ্ন যেখানে সেখানে ঢিলেমির সুযোগ নেই। মশক নিধনের জন্য মানসম্পন্ন ওষুধ কিনতে হবে, সময়মতো তা আনতেও হবে। প্রয়োগও যাতে সঠিকভাবে হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে। মেয়রদের তো কর্মীবাহিনী রয়েছে, তাদের তৎপর রাখতে হবে।

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]