রামের নামে হত্যাযজ্ঞ সমর্থনযোগ্য হতে পারে না

আমাদের নতুন সময় : 13/07/2019

অনিন্দ্র মাঝি, কলকাতা : অখ- ভারত, সিন্ধু নদীর তীর ধরে আর্যশক্তির প্রবেশ, অপরদিকে আদিবাসী শক্তির প্রতিভু তখন মহাবলি রাবণ। বোন শূর্পনখাকে ঘিরে তুমুল যুদ্ধের বাতাবরণ…ফ্লাশব্যাকে দ-কারণ্যের তীর ধরে রাম-সীতা-লক্ষণের আগুয়ান রথ। সরযূ নদীর এপারে রামের রথধ্বজা। ফিরে গেছেন সারথি সুমন্ত্র। আর ওপারে তখন চ-ালরাজ গুহক।

রামের কোমল স্বভাবে মুগ্ধ তখন চ-ালরাজ। আলিঙ্গনে আবদ্ধ উঁচুবর্ণ ও দলিত হরিজনসমাজ।

ভুল বললাম কি? না ভুল বলিনি আমি, সাক্ষী আছেন ইতিহাস প্রণেতাগণ। অর্থাৎ তৎকালীন ভারতবর্ষে মুসলিম না থাকলেও স্বয়ং রামচন্দ্রের মাধ্যমে সর্বধর্মসমন্বয়ের একটা মহান পরিচয় বিদ্যমান ছিলো। অমর্ত্য সেন শুধু নন, ভারতবর্ষের আপামর সাধারণ মানুষ এটা জানেন এবং বোঝেনও যে, সর্বধর্ম সমন্বয়ের মূলমন্ত্র লুকনো আছে মানবধর্মের রসায়নে। কিন্তু এরই মধ্যে কিছু মানুষকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে সেই রামেরই নাম উচ্চারণ করে মানুষ ঠেঙাতে ও হত্যা করতে, যা শুধু অন্যায় নয়, অবৈধও।

উদ্দেশ্য একটাই, মানুষের মধ্যে ভীতি ও হিংসার জমি তৈরি করে নিজেদের ক্ষুদ্র স্বার্থ মেটানো।

আজ অমর্ত্য সেন যখন বলেন, রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতায় রাম নামের আড়ালে মানুষ ঠেঙানোর কাজ চলছে, তখন ছোট থেকে বড়, মেজো, সেজো, এমনকি এক রাজ্যপালও তাঁর বক্তব্যকে খ-ন করার জন্য নখ-দাঁত বের করে আসরে নেমে পড়েছেন। তাঁদের বক্তব্য একটাই, অমর্ত্য সেন কিছু বোঝেন না, যা বোঝেন, সব তারা।

আদৌ কি তাই? মনে হয় না, তারা প্রত্যেকেই সত্যটা জানেন। আর যদি জানেনও, তা হলেও ভেড়ার মতো চোখ বুজে প্রতিনিয়ত মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। তাঁরা খুব ভালো করেই জানেন, ধর্মরক্ষার আড়ালে কাপুরুষোচিত বর্বর হত্যাকা- সাধারণ ভারতবাসী কখনো সমর্থন করেন না।

ভারত সরকার যদি একটিবার ঘোষণা করেন, রাজনৈতিক মতাদর্শ আলাদা হতেই পারে, কিন্তু রাজনৈতিক মতাদর্শের আড়ালে গা বাঁচিয়ে মানুষ খুনের মতো হঠকারিতা সরকার কখনো মেনে নেবে না, সংবিধানস্বীকৃত ভারতীয় বহুত্ববাদেরর তত্ত্বকে অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলার জন্য আমরা বদ্ধপরিকর, তাহলেই অশুভশক্তির বিনাশ সম্ভব, যার বাস্তবায়ন শুধু প্রয়োজনই নয়, বর্তমান সময়ের দাবি।

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]