• প্রচ্ছদ » » আচরণই ভালোবাসা বা ঘৃণার জন্ম দেয়


আচরণই ভালোবাসা বা ঘৃণার জন্ম দেয়

আমাদের নতুন সময় : 14/07/2019

আকতার বানু আল্পনা

মানুষের সততা পরীক্ষা করার জন্য একটা গবেষণা হয়েছিলো। একটি খাবারের দোকানের লেডি বিক্রেতাকে বলা হলো ক্রেতাদের কাছ থেকে জিনিসের ক্ষয়মূল্য নিয়ে বাড়তি টাকা ফেরত দেওয়ার সময় কিছু টাকা বেশি দিয়ে দিতে। দেখার জন্য যে, ক্রেতারা বাড়তি টাকাটা ফেরত দেয় কিনা। প্রথমে লেডি বিক্রেতাকে বলা হলো কাস্টমারদের সঙ্গে খুব আন্তরিক আচরণ করতে। এতে দেখা গেলো প্রায় সব ক্রেতাই বাড়তি টাকাটা ফেরত দিয়ে দিলো। কিছু সময় পর লেডি বিক্রেতাকে বলা হলো জিনিস বিক্রির সময় ক্রেতাদের সঙ্গে কিছুটা রুঢ় ব্যবহার করতে। এর ফলে দেখা গেলো অধিকাংশ ক্রেতা বাড়তি টাকা ফেরত দিলো না। তার মানে আপনার সঙ্গে লোকে কেমন ব্যবহার করবে, সেটা নির্ভর করে আপনার নিজের আচরণের উপর। সেমিফাইনালে ভারতের পরাজয়ে ফেসবুকে আনন্দের বন্যা দেখেছি। তার সবচেয়ে বড় কারণ হলো ভারতীয় ক্রিকেটারদের অসভ্য আচরণ। এ প্রসঙ্গে একটা কৌতুক শুনুন। এক নাদুসনুদুস মন্ত্রী অনেক লোকজন সঙ্গে নিয়ে সুন্দরবনে বেড়াতে গেছেন। হঠাৎ এক বাঘ এসে বললো, ‘মন্ত্রী ব্যাটা, আজ আমি তোকে খাবো!’ মন্ত্রী ভয়ে ভয়ে মুখ কাচুমাচু করে বললো, ‘মানুষের মাংস খেতে চাও? এখানে আরও অনেক মানুষ আছে। তাদের খাও।’ বাঘ বললো, ‘মানুষের মাংস তো আগেও খেয়েছি। আজ ইম্প্রুভড ডায়েট খাবো। কারণ তুই অনেক মানুষের রক্ত খেয়ে ইম্প্রুভড মানুষ হয়েছিস।’ তেমনি ক্রিকেট খেলা তো আগেও দেখেছি। সম্প্রতি ভারতের পরাজয় দেখতে চেয়েছিলাম। বলাবাহুল্য, ভারতের পরাজয়ে আমিও ভীষণ খুশি। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]