• প্রচ্ছদ » » ড. দেলোয়ার হোসেন বললেন, উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীন যে নীতি গ্রহণ করেছে সেটা নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি আছে


ড. দেলোয়ার হোসেন বললেন, উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীন যে নীতি গ্রহণ করেছে সেটা নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি আছে

আমাদের নতুন সময় : 14/07/2019

আমিরুল ইসলাম : উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীনের নেয়া নীতিকে সমর্থন জানিয়েছে সৌদি আরব, রাশিয়াসহ ৩৫টি দেশ।  জাতিসংঘে পাঠানো এক চিঠিতে চীনকে এ সমর্থন জানিয়েছে ওই দেশগুলো। অন্যদিকে পশ্চিমা অনেক দেশ চীনের ওই নীতির কঠোর সমালোচনা করেছে। চীনের বিরুদ্ধে উইঘুরের লাখ লাখ মুসলিমদের আটক ও জাতিগত নির্যাতনের অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও  সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কাতারসহ বিভিন্ন মুসলিম দেশের চীনের নীতিকে সমর্থন করার বিষয়টিকে কীভাবে দেখছেন জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীন আসলে যে নীতি গ্রহণ করেছে সেটা নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি আছে। এর পেছনে পশ্চিমা ষড়যন্ত্র আছে, আবার চীনের  বাড়াবাড়িও আছে।

তিনি বলেন, এটা চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয় হওয়ায় তারা এ বিষয়ে এক ধরনের নীরবতার মাঝে আছে। আসলে সেখানে যে ব্যবস্থাগুলো গ্রহণ করা হচ্ছে সেটা নিপীড়নমূলক কিনা তা সরাসরি বলা যাচ্ছে না। চীন একটা ভিন্ন রকম দেশ। একটি কমিউনিস্ট দেশের যে আইন ব্যবস্থা বা সমাজ ব্যবস্থা সেটা ভিন্ন রকম। ফলে এটাকে যেমন জটিলভাবে দেখা হচ্ছে সেটা আসলে এমন নয়। চীনের এ বিষয় নিয়ে কোনো দেশের সরাসরি বিরোধিতা করা, মন্তব্য করা ও অবস্থান নেয়ার সুযোগ খুবই কম। সৌদি আরব , পাকিস্তান ও সমর্থন করা অন্যান্য দেশগুলো চীনের অনেক ঘনিষ্ঠ বন্ধুরাষ্ট্র। চীনের এ অভ্যন্তরীণ বিষয়গুলো নিয়ে তারা হয়তো কথা বলছে না। এ বিষয়টিও আবার একেবারে পরিষ্কার নয়। আমরা যে তথ্য পাই সেটা পশ্চিমা মিডিয়া থেকে পাই। তারা নিজেরাই ইসরাইল ফিলিস্তিনের মুসলিমদের উপর যে অত্যাচার চালাচ্ছে সেটাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ফলে এই পুরো  বিষয়টাকে এতো সহজ করে বলার সুযোগ নেই। চীন সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে তার নিজস্ব সামাজিক ব্যবস্থায় যা করছে সেটাতে যদি বাড়াবাড়ি থাকে তাহলে এটা ঠিক নয়। একটি মুসলিম কমিউনিটিকে আরও রেসপেক্ট করার অবশ্যই প্রয়োজন রয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে সম্পর্কগুলো হয় রাষ্ট্রের সঙ্গে রাষ্ট্রের। বাংলাদেশের অনেক অভ্যন্তরীণ বিষয় রয়েছে যেটা অন্য কোনো দেশ পছন্দ নাও করতে পারে। সেজন্য তারা বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের কোনো অবনতি ঘটাবে না। প্রত্যেকটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে ঘুরেফিরে সম্পর্ক তৈরি করা যায় না। আর উইঘুর ইস্যুটা খুব জটিল ইস্যু, আমি মনে করি এটাকে সহজভাবে দেখার কোনো সুযাগ নেই।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]