• প্রচ্ছদ » » রাষ্ট্র, আইন, প্রতিরক্ষা, সমর, সেনা, অস্ত্র, ক‚টনীতি আমি কম বুঝি, আমি শুধু বুঝি কাঁটাতার কাঁটাতার খেলায় কোনো ফেলানী, কোনো রবীন্দ্রনাথ দাস ঝুলে বা ভেসে মরে যাবে না


রাষ্ট্র, আইন, প্রতিরক্ষা, সমর, সেনা, অস্ত্র, ক‚টনীতি আমি কম বুঝি, আমি শুধু বুঝি কাঁটাতার কাঁটাতার খেলায় কোনো ফেলানী, কোনো রবীন্দ্রনাথ দাস ঝুলে বা ভেসে মরে যাবে না

আমাদের নতুন সময় : 14/07/2019

বীথি সপ্তর্ষি

প্রাথমিকে পড়ার সময় আমার এক বন্ধু ছিলো। নাম তাহরিমা। ছোটখাটো, ফর্সা, লাল মতো চোখ, খুব দুঃখী দুঃখী আর মায়াময় চেহারার একটা মেয়ে। অনটন আর দারিদ্র্যের ছাপ থেকে স্কুল ড্রেসও তাকে লুকাতে পারতো না। বাবার স্কুলে পড়ার কারণে এমনিতেই আমার কোনো বন্ধু তৈরি হয়নি, বন্ধু কনসেপ্টটা বাবার পছন্দ ছিলো না। ‘ভালো স্টুডেন্ট’ হওয়ার কারণে ভালো ‘স্টুডেন্ট’দের সঙ্গে পড়াশোনা ঘটিত ও প্রতিযোগিতামূলক সম্পর্ক ছিলো। এখনকার মতো সরব চটপটে না থাকার কারণে শেষ বেঞ্চের স্টুডেন্ট তাহরিমার সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব হয়নি। তবু হঠাৎ ১০/১২ দিন তার অনুপস্থিতি আমাকে পীড়া দিলে খোঁজ নিয়ে জানতে পারলাম তার বাবা মারা গেছেন। শিবরামপুর সীমান্তে গরু চরাতেন তিনি। তাহরিমা হঠাৎ একদিন স্কুলে আসে, তারপর আর আসে না। খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, তার বিয়ে হয়ে গেছে। তারপর আমাদের আর কখনো দেখা হয়নি। বড় হতে হতে জানতে পারি, সীমান্তবর্তী আমাদের এলাকার অনেকেই ভারতীয় সেনাদের গুলি খেয়ে মারা গেছে। তবু তাহরিমার মলিন মুখ, তার শেষ বেঞ্চ, স্কুলে না আসা, আকস্মিক বিয়ে, আর কখনো দেখা না হওয়া আমার ভেতর গভীর ক্ষত তৈরি করে রেখেছিলো। সত্যি বললে বলতাম, এখনো সেই ক্ষত আছে। গত দশ বছরে বিএসএফ সীমান্তে ২৯৪ জন বাংলাদেশি হত্যা করেছে। আমি খবর পড়ি আর চোখের সামনে ভেসে ওঠে, ২৯৪ জন তাহরিমার বাবা। যাদের সঙ্গে আমার কোনোদিন দেখা হয়নি। রবীন্দ্রনাথ দাস। ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার এক জেলে। ঝড়ের কবলে পড়ে কোনো সাপোর্ট ছাড়া, ১২০ ঘণ্টা তিনি পানিতে ভেসে ছিলেন। দীর্ঘ সময় পানিতে ভেসে থাকতে থাকতে সারা গা ফুলে গেছে, ভাসতে ভাসতে চট্টগ্রামের কুতুবদিয়া এলাকায় পৌঁছালে দৃষ্টিগোচর হন বাংলাদেশি জাহাজ এমভি জাওয়াদের। লাইফ জ্যাকেট, ক্রেইন আর মানুষের প্রতি মানুষের সহজাত প্রেম দিয়ে উদ্ধার করে সুস্থ করা হয় এই জেলেকে। সঙ্গের কেউই হয়তো আর বেঁচে নেই। আমি জানি না, এই জেলের বাড়িতে কোনো তাহরিমা আছে কিনা। থাকলে হয়তো সে বাবাহারা হবে না। সমাজের তৈরি করা ‘খারাপ স্টুডেন্টে’র সারিতে বসে থেকে থেকে একটা জীবন খরচ করে ফেলতে হবে না। অকালে বিয়ে করতে হবে না। রাষ্ট্র, আইন, প্রতিরক্ষা, সমর, সেনা, অস্ত্র, ক‚টনীতি এসব আমি কম বুঝি। বেশি বুঝতেও চাই না। আমি শুধু মানুষ বুঝি, জীবন বুঝি। মাটি, জল, হাওয়া, বৃক্ষ বুঝি। আমি শুধু বুঝি কাঁটাতার কাঁটাতার খেলায় কোনো ফেলানি, কোনো রবীন্দ্রনাথ ঝুলে…ভেসে মরে যাবে না। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ