চাঁদের পথে যাচ্ছে ভারতের চন্দ্রায়ন-২

আমাদের নতুন সময় : 15/07/2019

সুস্মিতা সিকদার : রাত ২ টা ৫১ মিনিটে যাত্রা শুরু হওয়ার কথা ভারতের তৃতীয় এবং সবচেয়ে ভারী চন্দ্রযানের। চন্দ্রযানটি সঙ্গে করে নিয়ে যাবে ৩.৮ টন ওজনের একটি উপগ্রহ। এটি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে যাত্রা শুরু করবে। দুই মাসের দীর্ঘ ৩ লাখ ৮৪ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে চন্দ্রায়ণ-২ চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করবে। চন্দ্রযানটির অরবিটার, ল্যান্ডার এবং রোভারসহ যাবতীয় যন্ত্রের ডিজাইন তৈরি করেছে ভারত। আর চন্দ্রযানটি তৈরি করতে ভারতের খরচ হয় নাসা থেকেও প্রায় ২০ গুণ কম। যা মহাকাশ অভিযানের ইতিহাসে একটি রেকর্ড। ইয়ন, এনডিটিভি, আনন্দবাজার।

চন্দ্রযানটির যাত্রা পথের সাক্ষী থাকবেন, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দ।

চন্দ্রযান সম্পর্কে ইসরো প্রধান কে শিভন বলেন, এই ধরনের উন্নতমানের ল্যান্ডার এই প্রথম ভারতে তৈরি হলো। অভিযান সফল হলে ভারত হবে বিশ্বের চতুর্থ দেশ যে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছানোর কৃতিত্ব অর্জন করবে। ভারতের আগে এই অভিযানে সফল হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীন। ইসরাইল এ বছরের শুরুতে চাঁদে অভিযান পরিচালনা করলেও সেটি ব্যর্থ হয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী ২০২২ সালের মধ্যে গগনযান’এর মাধ্যমে রকেটে চন্দ্রাভিযানের কক্ষপথে অভিযাত্রী পাঠানোর অঙ্গীকার করেছে। এটি সম্ভব হলে বিশেষজ্ঞদের মতে, জিও-স্ট্রাটেজিক স্টকগুলিতে কম খরচে বানানো ভারতীয় কৃত্রিম উপগ্রহ বাণিজ্যিক মহলে অতিসহজেই জনপ্রিয়তা অর্জন করবে।

চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছে চন্দ্রযান-২ যে সব কাজ করবে তাহলো, চাঁদে পানির অস্তিত্ব সন্ধান ও প্রানীর বাসযোগ্য পরিস্থিতি আছে কি না সেটা পরীক্ষা করা। যানটির রোভার চাঁদের মাটির রাসায়নিক পরীক্ষা করবে। ল্যান্ডার চাঁদের ভূমির কম্পনমাত্রা পরীক্ষা করবে এবং সেই সঙ্গে ভূগর্ভের গঠন বৈচিত্র জানতে গর্ত খুঁড়ে পরীক্ষা নীরিক্ষা চালাবে।

চন্দ্রায়ণ-১ মিশনে সহযোগিতা করেছিলো যুক্তরাষ্ট্র্র, ব্রিটেন, বুলগেরিয়া এবং ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সি। ওই যাত্রায় খরচ হয়েছিলো ৪৫০ কোটি রুপি।

এদিকে, চন্দ্রযান উৎক্ষেপণকে কেন্দ্র করে রোববার সন্ধ্যা থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের উপর দিয়ে বিমানের বেশকিছু রুট বন্ধ করেছে ভারতীয় বিমান কর্তৃপক্ষ। বিমান কর্তৃপক্ষের মতে, এই ধরণের রকেট উৎক্ষেপণের সময় হিসাবের সামান্য ভুল হতেই পারে। তখন কাছাকাছি কোন বিমান থাকলে ক্ষতির আশঙ্কা থাকে। রকেটটি বিমানের কাছাকাছি চলে গেলে কয়েকশো যাত্রীর প্রাণসংশয় হতে পারে। তাই কোন রকম ঝুঁকি না নিয়েই ওই রুটে বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]