• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম বললেন, কুমিল্লার আদালতে আসামির হাতে আসামি খুনের মাধ্যমে  বিচার ব্যবস্থার ওপর মানুষের আস্থা ও শ্রদ্ধাহীনতার চিত্র ফুটে ওঠে


ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম বললেন, কুমিল্লার আদালতে আসামির হাতে আসামি খুনের মাধ্যমে  বিচার ব্যবস্থার ওপর মানুষের আস্থা ও শ্রদ্ধাহীনতার চিত্র ফুটে ওঠে

আমাদের নতুন সময় : 16/07/2019

আমিরুল ইসলাম : কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফাতমা ফেরদৌসের এজলাসের খাসকামরায় ১৫ জুলাই সোমবার সকালে এক আসামি অপর আসামিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছেন। আদালতের মধ্যে এক আসামির আরেক আসামিকে খুন এই বিষয়টি আসলে কিসের চিত্র বহন করে? জানতে চাইলে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার তানজীব উল আলম বলেছন, বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে মানুষ এখন বিচার বিভাগকে অকার্যকর মনে করে। বিচার বিভাগের ওপর মানুষের শ্রদ্ধা কমে গেছে। তাই মানুষ এখন আদালতে প্রবেশ করে বিচারকের সামনেও প্রকাশ্যে খুন করতে দ্বিতীয়বার চিন্তা করে না।

তিনি বলেন, খুন করাটাই অপরাধ এটা আদালতের ভিতরে বিচারকের সামনে হোক আর অন্য কোথাও হোক। তবে এর মাধ্যমে এটা প্রমাণিত হয় যে আদালত সিস্টেমের ওপর মানুষের আর আস্থা নেই।  অপরাধ কমাতে হলে অপরাধীদের শাস্তি দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। অপরাধ করলে শাস্তি হবে এই বোধটা সবার মধ্যে আসতে হবে। মানুষ মনে করছে অপরাধ করলেও বছরের পর বছর কোনো বিচার হয় না কিংবা টাকা পয়সা দিয়ে বিচার, জাজ, কোর্ট কেনা যায়। রাজনৈতিক প্রভাব থাকলে হত্যা করলেও তার বিচার হয় না।  মানুষের এরকম ধারণা তৈরি হয়েছে।  আদালতকে সব ধরনের প্রভাব ও দুর্নীতির বাইরে রাখা যায় তাহলেই আদালতের পক্ষে ভালোভাবে বিচার করা সম্ভব হবে। তবেই মানুষের আস্থা ফিরে আসবে আদালতের ওপর। তখন আর মানুষ এধরনের অপরাধ করার কথা চিন্তা করবে না। কারণ সে জানবে অন্য কোনো ভাবে সে বিচার থেকে মুক্তি পাবে না। বাংলাদেশে অপরাধের তুলনায় শাস্তির পরিসংখ্যান দেখলে একটা ভয়াবহ চিত্র দেখা যায়। যে কয়টা মামলা হয় তার বৃহদাংশের চার্জশিট শেষ পর্যন্ত হয় না। যে কয়টা চার্জশিট হয় তার বৃহদাংশের কোনো শুনানি হয় না। যে কয়টার শুনানি হয় তার বৃহদাংশের বেকসুর খালাস হয়ে যায়। নি¤œ আদালতে শাস্তি হলে  আবার হাইকোর্টে গিয়ে খালাস পেয়ে যায়। অপরাধীদের মাত্র পাঁচ শতাংশের সাজা হয়। এ কারণেই দিন দিন অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]