শুভ জন্মদিন শন পোলক

আমাদের নতুন সময় : 16/07/2019

শ ন ম্যাকলিন পোলক, কেপ প্রদেশে জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি মূলত অল-রাউন্ডার হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ২০০০ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব পালন করেন। ১০৮ টেস্টে অংশগ্রহণ করে দক্ষিণ আফ্রিকানদের মধ্যে তিনি শীর্ষস্থানীয় উইকেট সংগ্রহকারী ও ৩ হাজার ৭০০ রান সংগ্রহ করেছেন। পোলকের পরিবার মূলত স্কটিশ বংশোদ্ভূত। তার দাদা অ্যান্ড্রæ পোলক অরেঞ্জ ফ্রি স্টেট দলের পক্ষ হয়ে খেলেছেন এবং তার জন্ম হয়েছিলো এডিনবরায়। পোলক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী ও কোনো পানীয়ে তার আসক্তি নেই। নাটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পোলক বাণিজ্যে স্নাতক ডিগ্রিধারী।
ফাস্ট-মিডিয়াম সিম বোলার হিসেবে ক্রিকেট খেলায় তার দৃপ্ত পদচারণা ছিলো। সঠিকভাবে দ্রæত বল করার পাশাপাশি সুইং করার সক্ষমতায় পারদর্শী ছিলেন পোলক। প্রবাদপ্রতীম দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার গ্রেইম পোলকের নাতি এবং সাবেক ফাস্ট বোলার পিটার পোলকের সন্তান শন পোলক ১৯৯৫/৯৬ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে নিজ দেশে অনুষ্ঠিত খেলায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষিক্ত হন। কয়েকটি খেলায় চমকপ্রদ ক্রীড়ানৈপুণ্য প্রদর্শন করেন ও অ্যালান ডোনাল্ডের সাথে বোলিং জুটি গড়েন। ডোনাল্ডের অবসরের পূর্ব পর্যন্ত উভয়ে ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান বোলিং স্তম্ভ।
হার্ড-হিটিং ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিগণিত ছিলেন পোলক। সচরাচর ৭ কিংবা ৮ নম্বরে ব্যাটিং করতে নামতেন। টেস্টে তার ব্যাটিং গড় ছিল ত্রিশের উপরে এবং ওডিআইয়ে পঁচিশের ঊর্ধ্বে। হ্যানসি ক্রনিয়ের ক্রিকেট জীবনে নিষেধাজ্ঞা নেমে আসলে এপ্রিল, ২০০০ সালে তাকে অধিনায়কত্ব প্রদান করা হয়। পাতানো খেলার কেলেঙ্কারী থেকে দলকে মুক্ত রাখতে সক্ষম হন। তার নেতৃত্বে দল শুরুতে ভাল করলেও বেশ কয়েকটি সিরিজে হেরে যায় দল। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার খারাপ ফলাফলের দরুন অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান। এ প্রতিযোগিতায় স্বাগতিক দেশ হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকা দলকে সবচেয়ে শক্তিশালী দল হিসেবে মনে করা হয়েছিলো। জুন, ২০০৭ সালে ব্যাঙ্গালোরে অনুষ্ঠিত আফ্রিকা একাদশ বনাম এশিয়া একাদশের খেলায় তার ভ‚মিকা ছিলো পেশাদার ব্যাটসম্যানের ন্যায়। ৭ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৩০ রান করেন যা এ অবস্থানে থেকে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। কিন্তু এ রেকর্ডটি বেশিদিন টিকেনি। পরবর্তী সিরিজেই মহেন্দ্র সিং ধোনি তা ভেঙে দেন। ১১ জানুয়ারি, ২০০৮ সালে তিনি আন্তর্জাতিক পর্যায়ের সকল স্তরের ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর নেয়ার কথা ঘোষণা করেন। ৩ ফেব্রæয়ারি তারিখে অনুষ্ঠিত ৩০৩তম একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলাই ছিলো তার শেষ খেলা।
২ হাজার সালে তাকে অধিনায়কত্ব প্রদান করা হয়। পাতানো খেলার কেলেঙ্কারী থেকে দলকে মুক্ত রাখতে সক্ষম হন। তার নেতৃত্বে দল শুরুতে ভালো করলেও বেশ কয়েকটি সিরিজে হেরে যায় দল। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার খারাপ ফলাফলের কারণে অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান। এ প্রতিযোগিতায় স্বাগতিক দেশ হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকা দলকে সবচেয়ে শক্তিশালী দল হিসেবে মনে করা হয়েছিলো। জুন, ২০০৭ সালে ব্যাঙ্গালোরে অনুষ্ঠিত আফ্রিকা একাদশ বনাম এশিয়া একাদশের খেলায় তার ভ‚মিকা ছিলো পেশাদার ব্যাটসম্যানের ন্যায়। ৭ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৩০ রান করেন, যা এ অবস্থানে থেকে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। কিন্তু এ রেকর্ডটি বেশিদিন টিকেনি। পরবর্তী সিরিজেই মহেন্দ্র সিং ধোনি তা ভেঙে দেন। ক্রিকেটে অসামান্য অবদান রাখায় পোলক উইজডেন কর্তৃক ২০০৩ সালের সংস্করণে বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে মনোনীত হন। শন পোলক ১৯৭৩ সালের ১৬ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকার পোর্ট এলিজাবেথে জন্ম গ্রহণ করেন। তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]