• প্রচ্ছদ » সাবলিড » জেলের ছেলে জেলে হবে, এই সংস্কৃতির অবসান চান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী


জেলের ছেলে জেলে হবে, এই সংস্কৃতির অবসান চান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 18/07/2019

মতিনুজ্জামান মিটু: জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ’২০১৯ উপলক্ষ্যে গতকাল রাজধানীর সেগুণবাগিচার মৎস্য ভবনের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু আরও বলেন, দেশে মাছের কোনো আকাল হবে না। শুধু স্বয়ংসম্পূর্ণই নয়, আমরা  উদ্বৃত্ত মাছ উৎপাদন করে বিদেশে আরো বেশি রপ্তানী করতে সক্ষম হবো। তিনি বলেন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে দেশে ৪২ লাখ ৩৮ হাজার মেট্রিক টন চাহিদার বিপরিতে উৎপাদন হয়েছে ৪২ লাখ ৭৭ হাজার মেট্রিক টন মাছ। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার কারণে চাহিদা শতকরা ২ভাগ বাড়লেও চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরেও দেশ মাছ উৎপাদনে উদ্বৃত্ত হবে। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পর বাংলাদেশ মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। দেশের জিডিপি’র শতকরা ৩.৫৭ভাগ এবং কৃষিজ জিডিপি’র এক-চতুর্থাংশেরও বেশি মৎস্য খাতের অবদান। বিশ্বে অভ্যন্তরিণ মুক্ত জলাশয়ে মাছ আহরণে বাংলাদেশ তৃতীয় এবং বদ্ধজলাশয়ে চাষের মাছ উৎপাদনে পঞ্চম, ইলিশে প্রথম এবং তেলাপিয়া উৎপাদনে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে। বাংলাদেশ বিশ্বে সবচেয়ে বেশি ৮০ ভাগ ইলিশ আহরণ করে থাকে। সরকারের নানামুখি সমন্বিত কার্যক্রমে ইলিশের উৎপাদন আশাতীতভাবে বেড়েছে এবং এধারা অব্যাহত থাকবে।

বিগত ২০০৮-০৯ অর্থবছরে যেখানে ইলিশের উৎপাদন ছিল ২ লাখ ৯৯ হাজার মেট্রিক টন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তা বেড়ে হয়েছে প্রায় ৫ লাখ ১৭ হাজার মেট্রিক টন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ইলিশ সম্পদের স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নে দরিদ্র জেলেদের সঞ্চয়ী করে তোলা ও আপদকালীন জীবিকা নির্বাহের সহায়ক তহবিল গঠনের জন্য ৩ কোটি ৫০ লাখ টাকার ‘ইলিশ সংরক্ষণ ও উন্নয়ন তহবিল’ গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের আবাদ বাড়ানোর লক্ষে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিভিন্ন প্রকল্প ও এবং রাজস্ব খাতের আওতায় মোট ২৬৬ মেট্রিক টন পোনা মাছ অবমুক্ত করা হয়েছে এবং ৩৬৭ টি বিল নার্সারি স্থাপন করা হয়েছে। সমুদ্রের সর্বোত্তম আহরণ নিশ্চিত করার জন্য ‘আর ভি মীন সন্ধানী’ নামক গবেষণা ও জরিপ জাহাজ বঙ্গোপসাগরে ক্রুজ পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যে ২৪ টি ক্রুজ পরিচালনার মাধ্যমে ৪৩০ প্রজাতি সনাক্ত করা হয়েছে। যার মধ্যে ৩৬৪ প্রজাতির মাছ, ৩৩ প্রজাতির চিংড়ি, ২১ প্রজাতির কাঁকড়া ও ১২ প্রজাতির মোলাক্স রয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বলেন, সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের মজুদ ও জীববৈচিতকে আরও সমৃদ্ধ করার লক্ষ্যে বিগত ২৬জুন তারিখে নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার নিঝুম দ্বীপ লাগোয়া ৩ হাজার ১৮৮ বর্গকিলোমিটার সমুদ্র এলাকায় বাংলাদেশের প্রথম সামুদ্রিক সংরক্ষিত এলাকা অর্থাৎ এমপিএ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে ইলিশের প্রজনন ক্ষেত্র, বিচরণ ক্ষেত্র ও মাইগ্রেশন পথ যেমন সুরক্ষিত হবে তেমনী অনেক বিপন্ন প্রজাতির মাছ, চিংড়ি, কাঁকড়া ও শামুক-ঝিনুক, স্তন্যপায়ী, সরীসৃপ, উভচর, স্থানীয় এবং পরিযায়ী পাখিদের জন্য অতিগুরুত্বপূর্ণ আবাসস্থল নিরাপদ থাকবে।

এসময় অনেকের মধ্যে মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান দিলদার আহমদ, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুবোল বোস মনি, মৎস্য অধিদফতরের ডিজি আবু সাইদ মো. রাশেদুল হক, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ডিজি ড ইয়াহিয়া মাহমুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ’২০১৯ এর প্রতিপাদ্য ‘মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি’ ও ‘মাছ চাষে গড়বো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ স্লোগানে একটি বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা মৎস্যভবন থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কৃষি খামার সড়কের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ এ প্রধান অতিথি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে এই সপ্তাহের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেবেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মৎস্য সেক্টরে বর্তমান সরকারের অগ্রগতি ও সাফল্য বিষয়ে অনুমানিক ৪ মিনিটের একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হবে। এসময় প্রধানমন্ত্রী এবারের জাতীয় মৎস্য পুরস্কার ২০১৯ প্রাপ্ত ১৭ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করবেন। সম্পাদনা : আবদুল অদুদ

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]