প্রদর্শনব্যবসা টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজন ব্যবসাসফল ছবি

আমাদের নতুন সময় : 18/07/2019

ইমরুল শাহেদ : একদিকে প্রদর্শনী ক্ষেত্র বাড়ানোর জন্য চলচ্চিত্র শিল্পের দাবি, আরেকদিকে প্রদর্শকদের অভিযোগ, প্রদর্শন ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ছবির সংকট। দাবি ও অভিযোগ… এ দুটি বিষয়ের বিপরীত মেরুতে অবস্থান থেকেই চলচ্চিত্র শিল্পে বিভিন্ন ধরনের সংকটের সৃষ্টি হচ্ছে। আর সুযোগ নিয়েই একশ্রেণির প্রযোজক পরিবেশক সাফটা চুক্তির আওতায় ভারতীয় ছবি নিয়ে আসছেন। গত সপ্তাহে শাপলা কথাচিত্রের ব্যানার থেকে কলকাতার দেব ও রু²ীনি অভিনীত কিডন্যাপ ছবিটি দেশের ৬৫টি সিনেমা হলে মুক্তি দেয়া হয়েছে। ধারণা রয়েছে যে, এসব ছবির মাধ্যমে সিনেমা হলগুলোকে বাঁচানো যাবে এবং প্রদর্শকরা চলচ্চিত্র প্রদর্শন ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখার ব্যাপারে আগ্রহী হবেন। কিন্তু ফল হচ্ছে তার বিপরীত। কিডন্যাপ ছবিটির ব্যবসায়িক ব্যর্থতা নিয়েই আগামী সপ্তাহে সাফটা চুক্তির আওতায় আমদানি করা জিৎ অভিনীত শেষ থেকে শুরু ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। কিডন্যাপের ব্যবসায়িক ফল দেখার পর কতোজন প্রদর্শক শেষ থেকে শুরুর ব্যাপারে আগ্রহী হবেন সেটার দিকে এখন সকলের দৃষ্টি নিবদ্ধ। প্রদর্শক সমিতি সূত্রে জানা গেছে, দেশে বর্তমানে চলমান সিনেমা হলের সংখ্যা ২৫০টি। ঈদের সময় সে সংখ্যা বেড়ে ২৭৫টি হয়। অন্য সময়ে ২৫টি সিনেমা হল বন্ধ থাকে এবং ব্যবহার হয় অন্য কাজে। গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, শাকিব খান ২০০ সিনেমা হলকে প্রযুক্তি সহায়তা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি আগামী ঈদের আগেই এ কাজ সম্পন্ন করবেন। জাকির হোসেন রাজুর মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবি দিয়ে এই প্রযুক্তির উদ্বোধন করা হবে। জাজ মাল্টিমিডিয়া ১০০টি সিনেমা হলকে প্রযুক্তি সহায়তা দিয়ে এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি প্রদর্শন সুবিধা নিচ্ছে অনেকদিন থেকেই। কিন্তু দেশে তো এখন তিনশ সিনেমা হল নেই। শাকিব খান কীভাবে ২০০ সিনেমা হলকে প্রযুক্তি সহায়তা দেবেন। অন্যদিকে একজন প্রযোজক দাবি তুলেছেন, দেশের প্রতিটি থানায় একটি করে সিনেমা হল করার। কিন্তু এ দাবি কে বিবেচনা করবে?
ছবির সংখ্যা ঘাটতির কথা স্বীকার করে পরিচালক শিল্পী চক্রবর্তী বলেন, একটি ব্যবসা সফল ছবির জন্য চিত্রনাট্য, নির্মাণশৈলীর বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। আগে একজন প্রযোজক লগ্নী করেছেন। এখান থেকে আয় করে সিনেমা হল করেছেন, কল-কারখানা করেছেন, বাড়ি-গাড়ি করেছেন, হোটেলসহ অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করেছেন। এখন কোনো প্রযোজক লগ্নী করে আসলটাই ওঠাতে পারেন না। তাই নিয়মিত প্রযোজকরা সরে গেছেন চলচ্চিত্র প্রযোজনা থেকে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]