• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » বর্ণবাদী মন্তব্যের জন্যে শত বছরের মধ্যে প্রথম ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের নিন্দা করলো মার্কিন কংগ্রেস, অস্থিমজ্জায় বর্ণবাদ নেই জানালেন ট্রাম্প


বর্ণবাদী মন্তব্যের জন্যে শত বছরের মধ্যে প্রথম ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের নিন্দা করলো মার্কিন কংগ্রেস, অস্থিমজ্জায় বর্ণবাদ নেই জানালেন ট্রাম্প

আমাদের নতুন সময় : 18/07/2019

রাশিদ রিয়াজ : যুক্তরাষ্ট্রের সংখ্যালঘু চার নারী অশে^তাঙ্গ কংগ্রেস সদস্যকে ‘যার যার দেশে ফিরে যাওয়ার’ পরামর্শ দিয়ে বলা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য বর্ণবিদ্বেষী। এ ধরনের বক্তব্যের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রে নবাগত ও অশ্বেতাঙ্গ মানুষের প্রতি ঘৃণা ও ভীতি ছড়ানো হচ্ছে। মঙ্গলবার মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদে(হাউজ অব রিপ্রেজেন্টিটিভ) প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এ ধরনের বক্তব্যকে নিন্দার যোগ্য বলে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়। অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার ট্যুইটে বলেছেন, তার অস্থিমজ্জায় কোনো বর্ণবাদ নেই। ট্রাম্পের এই ট্যুইটের জবাবে কংগ্রেসওম্যান আলেকজান্দ্রিয়া  ওকাসিয়া-কর্তেজ বলেন, ‘ঠিক বলেছেন। আপনার হাড়ে কোনো বর্ণবাদ নেই। বর্ণবাদ আছে আপনার হৃদয়ে, আপনার মগজে।’ সিএনএন/বিবিসি

কংগ্রেসের নিন্দা প্রস্তাবে বলা হয়, যেসব অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্রে আইনসম্মত উপায়ে আসতে চান, তাদের জন্য সে পথ খোলা রাখতে মার্কিন কংগ্রেস প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ জন্য বর্ণ, জাতি পরিচয়, ধর্ম বা জন্মস্থান বিবেচনায় আসবে না। ২৪০-১৮৭ ভোটে গৃহীত এই প্রস্তাবের পক্ষে সব ডেমোক্রেটিক কংগ্রেস সদস্য ভোট দিলেও মাত্র চারজন রিপাবলিকান ও একজন স্বতন্ত্র সদস্য সমর্থন করেন। এটি ছিল একটি প্রতীকী প্রস্তাব। এর কোনো আইনগত ভিত্তি না থাকলেও গত ১০০ বছরে এই প্রথম একজন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে এ রকম নিন্দাসূচক প্রস্তাব গ্রহণ করা হলো।

ওই চার নারী কংগ্রেস সদস্য এখন ‘স্কোয়াড’ হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছেন। এরা হলেন, আলেকজান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্তেজ, রাশিদা তালিব, আইয়ানা প্রেসলি ও ইলহান ওমর। এদের প্রথম তিনজনের জন্ম যুক্তরাষ্ট্রে। আর ওমর ছোটবেলায় সোমালিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। গত রোববার একাধিক টুইটে এই চার নারীকে নিজ নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার পরামর্শ দেন ট্রাম্প।

স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি নিন্দা প্রস্তাবের পক্ষে বলেন, যে ভাষায় ট্রাম্প কথাগুলো বলেছেন, ঐক্যবদ্ধভাবে তার প্রতিবাদ করা ছাড়া কোনো বিকল্প পথ নেই। কংগ্রেসের প্রতিটি সদস্যের, তা তিনি রিপাবলিকান বা ডেমোক্রেট যা-ই হন, তাদের অবশ্যই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বর্ণবাদী টুইটের নিন্দা জানানো উচিত। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]