সুবোধ চাই না, দুর্বোধ চাই!

আমাদের নতুন সময় : 18/07/2019

ফারুক ওয়াসিফ

‘সুবোধ’ নামটার মধ্যেই পিঠটান দেয়ার ইশারা আছে। সুবোধ তো পালাতেই বলছে। আর কতো কতো লোক পাশ্চাত্যে পাড়ি জমাচ্ছে। দেশে যারা থাকবে তাদের সুবোধ হলে চলবে না। যারা সুবোধ না তারা কি নির্বোধ? অধিকাংশ তরুণ-তরুণীকে আমার তেমন মনে হয় না। বরং তাদের মনে হয় ‘দুর্বোধ’ পুরানোরা যাদের বুঝতে পারি না। রাষ্ট্রও তাদের বুঝতে পারে না বলে ভয় পায়, নিয়ন্ত্রণের জাল পেতে রাখে। রাষ্ট্রের মালিকদের চোখে তরুণেরা শুধু ঝুঁকিতেই নেই, তারা নিজেরাই ‘ঝুঁকিপূর্ণ’। যেকোনো সময় কায়েমি ব্যবস্থার জন্য তারা হুমকি হয়ে উঠতে পারে। এই দুর্বোধদের সুবোধ তো বলাই যায় না, সেই নাম তাদের চিনতে সাহায্যও করে না। আমার পছন্দ এই দুর্বোধদের, যারা কোটা সংস্কার আর রাষ্ট্র মেরামতের ডাক দিয়েছিলো। তারা এনেছিলো নতুন ¯েøাগান, নতুন ভাষা ও পাবলিক ভঙ্গি। কোমল ‘সুবোধে’র ডাকে তারা পালায়ওনি, আবার ওরকম আলোকিত ভাষা দিয়ে সাধারণ তরুণদের থেকে দূরত্বও তৈরি করেনি। তাদের ভাষা অনেক স্মার্ট ও কমিউনিকেটিভ। যেমন : রাস্তা বন্ধ : ‘রাষ্ট্র মেরামতের কাজ চলছে, ৪-এ নেটওয়ার্ক নয়, ৪-এ স্পিড বিচার ব্যবস্থায় চাই’ ‘পড়তে এসেছি, মরতে নয়’। শিল্পী, বিপ্লবী, কবিরা আর ভাষা দিচ্ছে না, দিচ্ছে তথাকথিত সাধারণেরা। নতুন ভাষা যারা দেয় তারাই পরিবর্তনের লাইন-ঘাট ঠিক করে। পরিবর্তনের এজেন্টরা যখন সুবোধ হয় তখন দুর্বোধদের মন নিজস্ব ধারায় বইতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে জনগণই এখন বেশি বিপ্লবী। সুবোধের পালানো কোনো আত্মরক্ষা কর্মসূচি হতে পারে না। তা পরিস্থিতি বদলাবার ব্যাপারে নিস্পৃহই করে কেবল। আমার অনুমান,পলায়নপর কোনো বামধারা থেকেই এই গ্রাফিত্তির আইডিয়া এসেছে। এ রকম সুরুচিবান, সুসংস্কৃতিবান সুবচনের যে ঐতিহ্য তাদের আছে, তাতে এটা মনে হয়। কলোনিয়াল কলকাতায় হিন্দু সমাজের একটা এলিট অংশ নিজেদের সনাতন ধর্মীয় সংস্কারমুক্ত করার জন্য খ্রিস্ট ধর্মের আদলে ব্রাহ্ম সমাজ পত্তন করেছিলেন। আরও বর্ণবাদী হিন্দুদের ছিলো ‘আর্য সমাজ’। ব্রিটিশ কলোনিগুলোতে স্থানীয় কালচারাল এলিট তৈরির প্রজেক্টের নিট ফল হলো সংস্কার ও প্রতিবাদ আন্দোলনের নেতাদের ‘উন্নত’, ‘আলোকিত’ ও ‘প্রগতিশীল’ ভাব ধরা। এই ভাব বিচ্ছিন্নতার রোগলক্ষণই ফুটিয়ে তোলে, সংস্কৃতির ভাঙ্গা সেতু তাই আর জোড়া লাগে না। ‘সুবোধ’, ‘সুশীল’, ‘আলোকিত’ যারা তারা কখনো আমজনতা হয় না। নামকরণের মধ্যেই যে ‘সু’, ‘উন্নত’ জাতীয় ভাব আছে, তা কি বাকিদের ‘কু’, ‘অনুন্নত’ বলে বোঝায় না? সেই বাকিদের ছাড়া কীভাবে সমাজ পরিবর্তন আনবে ‘সুবোধেরা’? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]