• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বললেন,‘জাতীয় পতাকা দিয়ে অন্তর্বাস বানানো পুঁজিবাদী বিকৃত রুচির প্রকাশ’


সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বললেন,‘জাতীয় পতাকা দিয়ে অন্তর্বাস বানানো পুঁজিবাদী বিকৃত রুচির প্রকাশ’

আমাদের নতুন সময় : 19/07/2019

দেবদুলাল মুন্না : যুক্তরাষ্ট্রের ই-কমার্স সাইট অ্যামাজন বাংলাদেশের পতাকার নকশায় তৈরি অন্তর্বাস  হাফপ্যান্ট বিক্রি করছে। অ্যামাজনে ‘বাংলাদেশ ফ্ল্যাগ’ অংশে নারীদের অন্তর্বাস ও হাফপ্যান্ট বিক্রির ছবি রয়েছে। এসব অন্তর্বাস ও হাফপ্যান্ট ১৪ থেকে ২৭ ডলারে বিক্রি হচ্ছে। এরমধ্যে নারীদের অন্তর্বাস সবোর্চ্চ ২৭.৯৯ ডলার ও পুরুষদের হাফপ্যান্ট সবোর্চ্চ  ২১.৯৯ ডলার মূল্য দেখানো হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা বিধিমালা ১৯৭২ (সংশোধিত ২০১০)-এ বলা হয়েছে, জাতীয় পতাকাকে পোশাক হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না। বিধিমালায় বলা হয়, অনুমতি ছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য বা অন্য কোনো উদ্দেশ্যে জাতীয় পতাকাকে ট্রেডমার্ক, ডিজাইন বা পেটেন্ট হিসেবে ব্যবহার করাও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এ বিষয়ে শিক্ষাবিদ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘জাতীয় পতাকার নকশা দিয়ে অন্তর্বাস বানিয়ে বিক্রি করা পুঁজিবাদী বিকৃত রুচির প্রকাশ। এগুলো হওয়ার কারণ পুঁজিবাদী সমাজ সবকিছুকেই পণ্য বিবেচনা করে।পণ্য মনে করার কারণে বাণিজ্য করে মুনাফা ভোগ করাই থাকে মূল লক্ষ্য। অ্যামাজন একটি কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান। এরা কর্পোরেট পুঁজির দৌরাত্ম্যে এমন কর্ম করা অস্বাভাবিক মনে করেনা।কারণ এর আগেও অনেক দেশে বিশেষ করে পাশ্চাত্যে জাতীয় পতাকার নকশা নিয়ে অনেক কিছু করার ঘটনা ঘটেছে যা জাতীয় পতাকা অবমাননার সামিল।আমার ধারণা অ্যামাজন এ বিষয়ে আমাদের সরকারেরও অনুমতি নেয়নি। এইসব বিকৃতি ও অবমাননা রোধে সরকার উদ্যোগ নিতে পারে।’ সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]