বাণিজ্য প্রসারে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ব্যবসায়ীদের সেবা দেয়া হচ্ছে, বললেন বাণিজ্যমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 26/07/2019

স্বপ্না চক্রবর্তী : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্শি বলেছেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ^বাণিজ্যে টিকে থাকতে হলে পণ্যের বৈচিত্র্য আনতে হবে। মেধাকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে হবে। দেশের বাণিজ্য উন্নয়নে মেধার বিকল্প নেই। বাণিজ্যের উন্নয়ন মানেই দেশের উন্নয়ন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা মোতাবেক বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন অফিসগুলোকে ডিজিটাল করা হয়েছে। এখন ইউরোপিয়ন ইউনিয়ন থেকে জিএসপি সুবিধা পেতে ব্যবসায়ীরা নিজেরাই নিজেদের সার্টিফিকেট ইস্যু করবেন। ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন অনলাইনে করা হচ্ছে, জয়েন্ট স্টক কোম্পানির কাজ এখন অনলাইনেই করা হচ্ছে।  বাংলাদেশে এখন অতি সহজেই ব্যবসা করা যায়। বিশ^বাণিজ্য সংস্থার পরামর্শ মোতাবেক বাংলাদেশ বাণিজ্য সহজীকরণে অনেক এগিয়ে গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বাণিজ্যমন্ত্রী ঢাকায় প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অফ বাংলাদেশ-এর বার্ষিক সাধারণ সভা ২০১৯-এ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ সব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, গতবছর বাংলাদেশ থেকে ৪০.৫৩৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি করা হয়েছে। এটা ছিল লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি। রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০.৫৫ ভাগ। আগামী ২০২১ সালে দেশের মোট রপ্তানির পরিমাণ দাঁড়াবে ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অফ বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট হুমায়ুন রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পলিসি রিসার্স ইনস্টিটিউট অফ বাংলাদেশ  এর রিসার্স ডিরেক্টর  ড. এম এ রাজ্জাক। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট শেখ ফজলে ফাহিম, ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট এর রেসিডেন্ট প্রোগ্রাম ডিরেক্টর জিওফ্রে ম্যাকডোনাল্ড, ইন্টারন্যাশনাল অরর্গানাইজেশন ফর  মাইগ্রেশন এর চিফ অফ মিশন জিওরজি গিগাউরি। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী, ইকবাল

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]