চাঁদে নয়, চীনের সহায়তায় মহাশূন্যে মানুষ পাঠাবে পাকিস্তান

আমাদের নতুন সময় : 28/07/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : চাঁদে নয়, ২০২২ সালে মহাশূন্যে মানুষ পাঠাবে পাকিস্তান। চাঁদে মানুষ পাঠানোর ৫০তম বার্ষিকীতে এই ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। নিজস্ব মহাকাশযান  ও উৎক্ষেপণ ব্যবস্থা না থাকায় চীনের সহায়তায় মহাশূন্যে মানুষ পাঠাবে পাকিস্তান। আগামী বছর থেকে মহাশূন্যে যাওয়ার প্রার্থী নির্বাচন শুরু হবে বলে দেশটি জানায়। জি নিউজ, রয়টার্স।

পাকিস্তানের প্রতিবেশি ও দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দী ভারত তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সহায়তায় ১৯৮৪ সালে মহাকাশে মানুষ প্রেরণ করে। সম্প্রতি দেশটি সম্পূর্ণ নিজস্ব প্রযক্তিতে চাঁদে একটি মহাকাশযান ও রোভার পাঠায়। এটি চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে যাওয়া প্রথম মিশন। এরপরই নড়েচড়ে বসে পাকিস্তান। এ ঘোষণা তারা বেঁছে নিলো চাঁদে মানুষ অবতরণের ৫০তম বার্ষিকীকে। এই বিষয়ে পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘এটি আমাদের ইতিহাসের বৃহত্তম মহাকাশ অভিযান হতে যাচ্ছে। ফেব্রুয়ারি মাস থেকে একটি বাছাই কমিটি প্রার্থী বাছাই শুরু করবে।’ ১৯৬১ সালে পাকিস্তানের মহাকাশ সংস্থা স্পেস অ্যান্ড আপার অ্যাটমোস্ফিয়ার রিসার্চ কমিশন সুপারকো গঠন হয়। এই সংস্থা গঠনের ৫০ বছর পরে প্রথমবারের মতো যোগাযোগ উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করে। সেই প্রকল্পেও সম্পূর্ণ সহায়তা করেছিলো চীন।

ফাওয়াদ চৌধুরী আরো বলেন, ‘গর্বের সঙ্গে জানাচ্ছি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আমরা বাছাই প্রক্রিয়া শুরু করবো। ৫০ জন ব্যক্তিকে শর্টলিস্ট করা হবে। ২০২২ সালে তালিকা ছোট হয়ে ২৫ জনে নেমে আসবে। এখান থেকেই একজনকে আমরা মহাকাশে পাঠাবো।’ ফাওয়াদ ডনকে বলেন, দেশটির বিমানবাহিনী পুরো বাছাই প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করবে। মহাকাশে মানুষ পাঠানোর বিষয়ে এ বছরের এপ্রিল মাসে চীনের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে পাকিস্তান। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]