আজ ছিটমহল বিনিময়ের ৪বছর উন্নয়নে বদলে গেছে দাসিয়ারছড়া

আমাদের নতুন সময় : 31/07/2019

শাহনাজ পারভীন : আজ ৩১ জুলাই ছিটমহল বিনিময়ের মাত্র ৪ বছর। খুব বেশী সময় নয়। ছিটমহলবাসীর এরই মধ্যে যেন ঘুচে গেছে র্দীঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনা। ছিটমহলবাসীর ৬৮ বছরের ঘোর অন্ধকারের বুকে জেগেছে আলোর বন্যা। ছিটমহল বিনিময়ের ৪ বছরের মাথায় ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো, প্রশস্ত মশৃন পাকা রাস্তা, ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন, সরকারি উদ্যোগে নির্মিত সৃদৃশ্য মসজিদ-মন্দির, বিটিসিএল অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে টেলিফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ, ডিজিটাল সেন্টার, স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা-এ যেন আলাদীনের চেরাগের ষ্পর্শে বদলে গেছে এক নতুন জনপদ দাসিয়ারছড়া। ছিটমহল বিনিময়ের ৪ বছর পূর্তিতে বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার বাসিন্দারা। এর মধ্যে সন্ধা ৭ টায় রয়েছে আলোচনা সভা, ৯ টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও রাত ১২টা ১ মিনিটে ৬৮টি মোমবাতি প্রজ্জলন ও বঙ্গবুন্ধর প্রতিকৃতিত্বে পুস্পমাল্য অর্পন, প্রতিটি বাড়িতে আলোক সজ্জাসহ, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ১৮ টি মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও ৩ টি মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা।

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত দাসিয়ারছড়া ছিটমহলের অধিবাসীরা ২০১৫ সালের ১ আগস্ট থেকে বাংলাদেশের মূল ভূ-খন্ডের সঙ্গে মিশে গিয়ে তাদের ৬৮ বছরের অবরুদ্ধ জীবনের অবসান ঘটে। দাসিয়ারছড়ার সাবেক পঞ্চায়েত প্রধান নজরুল ইসলাম, মোজাফর আলী, বেলাল মিয়াসহ অনেকেই জানান, এখন তারা বাংলাদেশের নাগরিক পরিচয় দিতে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত।  সাবেক ছিটমহল আন্দোলনের নেতা গোলাম মোস্তফা ওই মইনুল হক বলেন, ‘আমাদের প্রাণের দাবী দাসিয়ারছড়া ইউনিয়ন ঘোষণা না হলেও গত চার বছরে সরকার ব্যাপক হারে যেভাবে উন্নয়ন করেছে তাতেই আমরা সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ।’ ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. মাছুমা অরেফিন বলেন,‘বিলুপ্ত ছিটমহলের অবরুদ্ধ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধপরিকর। এছাড়াও গত চার বছরে বিলুপ্ত ছিটমহলে সরকারি ও বেসরকারিভাবে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে ।

উল্লেখ্য গত ২০১৫ সালের ১ আগস্ট থেকে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতের ১১১টি ও ভারতের অভ্যন্তরে ৫১ বাংলাদেশী ছিটমহল বাংলাদেশ ও ভারতের মূল ভূ-খন্ডের সঙ্গে মিশে গিয়ে তাঁদের ৬৮ বছরের অবরুদ্ধ জীবনের অবসান ঘটেছে। এখন ছিটমহল শুধু ইতিহাস ও স্মৃতি। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]