• প্রচ্ছদ » সাবলিড » কোরবানির ঈদে ৪৮ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হবে কোরবানির পশু খাতে প্রায় ২৪ হাজার কোটি


কোরবানির ঈদে ৪৮ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হবে কোরবানির পশু খাতে প্রায় ২৪ হাজার কোটি

আমাদের নতুন সময় : 04/08/2019

মেরাজ মেভিজ : কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ঠিক কতো টাকার বাণিজ্য বা লেনদেন হবে তার হিসেব নেই দেশের কোনো সংস্থার কাছে। তবে বিশেষ কয়েকটি খাত পর্যালোচনা করে দেখা যায় এবারের ঈদ বাণিজ্যে ন্যূনতম ৪৮ হাজার কোটি টাকা হাতবদল হবে। ঈদুল আজহা পালনে দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক মুদ্রা সরবরাহ হয়ে থাকে। বিশেষ করে কোরবানির পশু ক্রয়ে বিশাল অংকের অর্থ লেনদেন হয়ে থাকে। এরপরই রয়েছে দেশের মসলা বাজার। চামড়া শিল্পেও এ সময় বিশাল অর্থের ঋণ দিয়ে থাকে সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন ব্যাংক। হজকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ বিমানসহ অনান্য বেসরকারি সংস্থাগুলো দেশের অর্থনীতিতে সবচেয়ে বড় অংকের টাকা যোগ করে থাকে। এছাড়া দেশের বাইরে থাকা প্রবাসী বা শ্রমিকরাও এ সময়ে রেমিটেন্স খাতে রেকর্ড পরিমাণ অর্থ যোগান দেয়। আর দেশের অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রী পরিবহনে সাধারণ সময়ের চেয়ে অনেক বেশি টাকা আয় হয়।

সব মিলিয়ে দৈনিক অর্থনীতির এক বিশেষ হিসেবে দেখা যায় এবার ঈদের প্রধান ৬টি খাতেই লেনদেন হবে ৪৮ হাজার কোটি টাকার বেশী অর্থ।

দিন কয়েক আগে বাংলাদেশ মৎস ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের হিসেব থেকে জানা যায়, এ বছর কোরবানির পশুর সংখ্যা ১ কোটি ১৭ লাখ ৮৮ হাজার। প্রতিটি পশু ন্যূনতম ৪০ হাজার টাকার ধরে হিসেব করলে বড় পশু বিক্রয় থেকে লেনদেন হবে ১৮ হাজার ৩২৮ কোটি টাকা। আর বিক্রয় যোগ্য ৭২ লাখ ছাগল-ভেড়া প্রতিটি ৮ হাজার টাকা হিসেবে আসবে আরও ৫ হাজার ৭৬০ কোটি টাকা। সবমিলে ২৪ হাজার কোটি ৮৮ লাখ টাকা।

বাংলাদেশ বিমানের এক হিসাবে এ বছর হজ পালনে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজ-যাত্রী সৌদি আরব যাবেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মাহবুব জাহান জানান, ‘এ বছর হজ ফ্লাইটে থেকে আয় অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে। যা ৮০৬ কোটি টাকা। সরকার নির্ধারিত ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা হিসাবে বেসরকারি হজ যাত্রীদের থেকে আসবে আরও প্রায় ৭২১ কোটি ৯৩ লাখ বা ৭২২ কোটি টাকা। সব মিলে এবার হজ ফ্লাইট থেকেই লেনদেন হচ্ছে ১ হাজার ৫২৮ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে ঈদুল ফিতরের সময়ে  অর্থাৎ গত মে মাসে ১৪ হাজার ৭৪৮ কোটি ৭২ লাখ টাকা রেমিটেন্স এসেছে। কোরবানির ঈদেও ১৫ হাজার কোটি টাকার আশে পাশেই রেমিটেন্স আসবে বলে ধারণা তাদের।

অভ্যন্তরীণ পরিবহন খাতের বিশেষজ্ঞদের ধারণা অনুযায়ী এ সময়ে নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে দ্বিগুণ দামে ফর্মাল টিকিট আর ইনফর্মাল টাউট-দালাল ও বিবিধ উপায়ে টিকিট বিক্রি হতে দেখা যায়। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, পরিবহন খাতে ঈদকে কেন্দ্র করে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকার বাড়তি ব্যবসা বা লেনদেন হয়ে থাকে। এটিও অর্থনীতিতে প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি করে।

চামড়া খাতে ব্যবসায়ীদের হিসেবে চামড়া সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াকরণের সঙ্গে প্রায় ১ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ ও ব্যবসা জড়িত। যা কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করেই পরিচালিত হয়। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো প্রতিবছর তাই এ সময়ে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা বিশেষ ঋণ দিয়ে থাকে, বেসরকারি ব্যাংকগুলো দেয় ৮০-১০০ কোটি টাকা।

অন্যদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, কোরবানির ঈদে ভোজ্যতেলের চাহিদা প্রায় আড়াই লাখ টন। প্রতিলিটার ভোজ্যতেলের গড় দর ১০০ টাকা হিসাবে প্রায় ২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। দুই লাখ টন পেঁয়াজে থেকে ৪০ টাকা গড়ে প্রায় ৮০০ কোটি ও রসুন, আদা, হলুদ, মরিচ বিক্রির পরিমাণ প্রায় ৪০০ কোটি টাকা। এ ছাড়া গরম মসলা এলাচি, দারুচনি, লবঙ্গ, জিরাসহ অন্যান্য মসলা বিক্রি হয়ে থাকে অন্তত ৩০০ কোটি টাকার। সব মিলিয়ে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য। সম্পাদনা : বিশ্বজিৎ, রেজাউল আহসান

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]