• প্রচ্ছদ » সাবলিড » এডিস মশা খুব অল্প পানিতে ডিম পাড়ে, প্রতিকূল পরিবেশে এক বছর পর্যন্ত টিকে থাকে, জানালো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর


এডিস মশা খুব অল্প পানিতে ডিম পাড়ে, প্রতিকূল পরিবেশে এক বছর পর্যন্ত টিকে থাকে, জানালো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

আমাদের নতুন সময় : 06/08/2019

তাসকিনা ইয়াসমিন : স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও এডিস বাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির পক্ষ থেকে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দদের জন্য একটি ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামের আয়োজন করেছে। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের প্রধান কীটতত্ত্ববিদ ডাঃ ভুপেন্দর নাগপাল। তিনি ডেঙ্গু রোগের গড় বাহক এডিস মশার নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা নিয়ে তথ্যভিত্তিক কারিগরি বিষয়াদি উপস্থাপন করেন।

তিনি বলেন, ডেঙ্গুরোগের প্রতিরোধ ও প্রতিকারে অবশ্য করনীয় হলো বাহক এডিস মশার নিয়ন্ত্রণ ও প্রজননস্থল ধ্বংস যার জন্য জনসাধারনের অংশগ্রহণ সর্বাগ্রে প্রয়োজন। এডিস মশা ঘরের  কোনায়, অন্ধকার আর্দ্রতাপূর্ণ জায়গায় যেমন পর্দার পেছনে, খাট ও টেবিল চেয়ারের নিচে থাকতে পছন্দ করে। লার্ভা ধ্বংসে টেমিফস (ঞবসবঢ়যড়ং)- ১গ্রাম/১০লিটার পানিতে খুব কার্যকরী, যা ব্যবহার পরিবেশ ও মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর নয়। নির্মানাধীন ভবনের প্রজননস্থল ধ্বংস করে ৪০ ভাগ পর্যন্ত রোগের প্রাদুর্ভাব কমানো সম্ভব। ইতোমধ্যে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে সকল জেলা ও উপজেলা হাসপাতালসমূহে স্থানীয়ভাবে  ডেঙ্গু কীট ও ঔষধ ক্রয়ের জন্য বিশেষ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ডেঙ্গু রোগের প্রতিরোধ ও প্রতিকার বিষয়ে সাধারণ জনগণকে সঠিক তথ্য প্রদানের মাধ্যমে উৎসাহিত করার জন্য এই ওরিয়েন্টেশন  প্রোগ্রামে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ডাঃ আবুল কালাম আজাদ, প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ সানিয়া তহমিনা,  প্রোগ্রাম ম্যানেজার ম্যালেরিয়া ও ডেঙ্গু, ডাঃ এম এম আকতারুজ্জামান এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]