• প্রচ্ছদ » » প্রজাপতিটা ধরতে গেলেই উড়ে যায়!


প্রজাপতিটা ধরতে গেলেই উড়ে যায়!

আমাদের নতুন সময় : 06/08/2019

ড. এমদাদুল হক

প্রজাপতিটা ধরতে গেলেই উড়ে যায়। কতো করে বুঝিয়ে বললাম- ‘আমি তোমাকে ভালোবাসি, তোমার কোনো ক্ষতি আমি করবো না’। বুঝে না, সে বুঝে না। সে কি বললো জানেন? সে বললো- ‘তুমি যদি আমাকে একটুও ভালোবাসতে, তবে বুঝতে- তোমার স্পর্শই আমার জন্য সবচেয়ে বড় ক্ষতি! আমি তোমাকে ধরতে পারি, তুমি আমাকে না’!
ঘুঘু ধরতে গেলাম, সেও উড়ে যায়। তাকেও কোমল স্বরে বললাম, ‘ধরা দাও প্রিয়, আমি তোমাকে ভালোবাসি। ঘুঘু বলল, ‘জানি, তুমি আমাকে খাঁচায় ভরবে’। এখন বিকেল। বসে আছি নদী তীরে; ভাবছি- কী ভালো লাগতো যদি একটি পাখি এসে বসতো আমার স্কন্ধে! পাখিরা আসে না। তারা বুঝে- আমরা গরু, ছাগল, ভেড়া, মহিষ, মুরগি খাই, কবুতর খাই, চড়ুই খাই, ঘুঘু খাই, নদী খাই, পাহাড় খাই, গাছ খাই। জীব-জন্তু পশু পাখি প্রজাপতি বৃক্ষ, ফুল. নদী, সমুদ্র, আকাশ কেউ আমাদের কাছে নিরাপদ না। সবাই ভয় পায়। কাউকে আমরা অভয়দান করতে পারিনি যে, আমার দ্বারা তোমার কোনো ক্ষতি হবে না। অভয়দান করতে টাকা লাগে না, ক্ষমতা লাগে না, বিত্ত লাগে না- প্রেম হলেই চলে। আর প্রেম তো সবার সঙ্গে সর্বদাই থাকে। তবু, অভয়দান করতে পারি না কেন?
ভাবতে-ভাবতে কখন যেন চিৎ হয়ে শুয়ে পড়েছি ঘাসে। চোখ বুজে আসছে। দেহ স্থির- শবের মতো। শ্বাসের শব্দও টের পাচ্ছি না। হঠাৎ একটি কোমল স্পন্দন ছড়িয়ে পড়লো সমগ্র অস্তিত্বে। অনুভব করছি- একটি পাখি বসে আছে আমার বুকে। কী যে অদ্ভুত আনন্দ হচ্ছে আমার! আনন্দে যেন পাথর হয়ে যাচ্ছি। চোখ মেলে দেখতেও পারছি না, কী পাখি- কি তার নাম? শুধু মনে হচ্ছিলো- এভাবেই কেটে যাক জীবন। তুমি কিনা, সেই পাখিটিকেই ঢিল মারলে! তাকিয়ে রইলাম তোমার দিকে, অশ্রæভরা চোখে। কী বলবো? কিই-বা বলার আছে? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]