• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » জম্মু ও কাশ্মীর এখন থেকে আলাদা দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল, লোকসভায় বিল পাস


জম্মু ও কাশ্মীর এখন থেকে আলাদা দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল, লোকসভায় বিল পাস

আমাদের নতুন সময় : 07/08/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : জম্মু-কাশ্মীরকে আলাদা দুটি কেন্দ্রশাষিত অঞ্চলে বিভক্ত করার বিল মঙ্গলবার ভারতের পার্লামেন্ট লোকসভার নি¤œকক্ষে পাশ হয়েছে। কিছু বিরোধীদলের ওয়াকআউটের কারণে সংখ্যাগরিষ্ঠতার পরিমাণ কমে গিয়েছিলো। ফলে খুব সহজেই পাশ হয়ে যায় বিলটি। এনডিটিভি।
সোমবার সকালেই এই বিলের বিষয়ে ঘোষণা দিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই বিলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৩৬৬ জন সদস্য আর বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ৬৬ জন। সোমবার রাজ্যসভায় পাশ হয় জম্মু কাশ্মীরের দ্বিধাবিভক্তি সংক্রান্ত বিল। পার্লামেন্টের নি¤œকক্ষেও বিলটি পাশ হওয়ায় তা কার্যকরে আর কোনো বাঁধা থাকলো না। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জম্মু ও কাশ্মীরে একটি বিধানসভা থাকলেও নতুন কেন্দ্রশাষিত অঞ্চল লাদাখে আইনসভা রাখা হচ্ছে না। একজন লেফটেন্যান্ট গভর্নর পরিচালনা করবেন লাদাখ।
বিলটি পাশ হওয়ার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, আন্ত:সীমান্ত সন্ত্রাসবাদকে মাথায় রেখে কাশ্মীরের নিরাপত্তা পরিস্থিতিকে মাথায় রেখেই জম্মু-কাশ্মীরকে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ঘোষণা করা হয়েছে। বিলটি পাশের সময় বেশ কয়েকটি বিরোধীদলকে সঙ্গে নিয়ে কংগ্রেস এর তীব্র প্রতিবাদ জানায়। তাদের সঙ্গে ছিলো সমাজবাদী পার্টি, ডিএমকে, লালু প্রসাদ যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল এবং বামপন্থী দলগুলো।
ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদের মাধ্যমে কাশ্মীর নিজস্ব সংবিধান রাখার অধিকার পেতো। এছাড়াও প্রতিরক্ষা, যোগাযোগ এবং পররাষ্ট্রনীতির মতো বিষয়গুলো ছাড়া বাকি বিষয়ে তাদের কেন্দ্রকে বাঁধা দেয়ার ক্ষমতা ছিলো। অন্য যেকোনো বিষয়ে কাশ্মীরি বিধানসভার অনুমোদন প্রয়োজন পরতো। এছাড়াও বাতিল হয়েছে ভারতীয় সংবিধানের ৩৫(ক) অনুচ্ছেদ। এর মাধ্যমে কে রাজ্যটির স্থায়ী বাসিন্দা তা ঠিক করতে পারতো বিধানসভা। এরফলে বহিরাগতরা রাজ্যে সম্পদ ক্রয়, সরকারি চাকরির আবেদন এবং শিক্ষাবৃত্তির আবেদন করতে পারতেন না। বিলুপ্ত হয়েছে এই অনুচ্ছেদও।
সরকার ব্যপক প্রস্তুতি নিয়েই এই অনুচ্ছেদ দুটি বাতিল করলো। এজন্য প্রথমে গৃহবন্দী করে রাখা হয় মূলধারার ৩ রাজনীতিবীদকে। মাত্র ১ সপ্তাহে সারা দেশ থেকে ৪৩ হাজার আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যকে উড়িয়ে নিয়ে গিয়ে মোতায়েন করা হয়। রাজ্যটির বিভিন্ন স্থানে বন্ধ রয়েছে মোবাইল ও ইন্টারনেট সংযোগ। চলছে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান। ৬টি অস্থায়ী কারাগার গঠন করা হয়েছে। এছাড়াও নিরাপত্তা বাহিনী ব্যাপক ধরপাকড় করছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]